পাতা:রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ.djvu/৪৬০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।
৩৭৮
রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ

পিতা মাতার সেকর ভাল বন্দোবস্ত করিবার জ্য প্রতিজ্ঞাৰূঢ় হইলেন। অনেক ভাবিয়া চিথিা পুস্তক প্রকাশ ও বিক্রয়ের ব্যবসায় অবলম্বন করা স্থির করিbেন; এবং ১৮৮৩ সালে ঐ ব্যবসায় আরম্ভ করিলেন। ব্যবসাতে বিশেষ উন্নতিলাভ হইবে এই আশায় তাহার পিতার অনুরক্ত ছাত্র ও চিরবক্স কোন্নগরের বাবু ক্ষেত্রমোহন বস্তু তাহার উৎসাহদাতা হইলেন; এবং শরৎকুমার উক্ত ব্যবসায় .এফ বৎসর চালানর পর তিনি নিজের ভ্রাতুসূত্র পূৰ্ণচন্দ্র বসুকে কিছু টাকা দিয়া ঐ কারবারের অংশীদার করিয়া দিলেন। এই কাৰ্য্যে লাহিড়ী মহাশরের নাম যে শরতেন্ত্র প্রধান সহায় হইল তাহাতে সন্দেহ নাই। তিনি বৃদ্ধ পিতার সেবার জন্য সংগ্রাম করিতেছেন জানিয়া অনেক' গ্রন্থকায় ও অপরাপর লোক তাহাকে স্বীয় স্বীয় পুস্তকাদি দিয়া সাহায্য করিতে অগ্রসর হইলেন। দৈখিতে দেখিতে ইহাদের কারবার ফাপিয়া উঠিতে লাগিল। ১৮৮৫ সালের শেষে শরৎকুমারের বৈষয়িক অবস্থা এরূপ হইল,যে সেই সময়ে বিদ্যাসাগর মহাশয়ের কালেজের কাজ পরিত্যাগ করিয়া কারবারে আপনার সমুদয় সময় দিতে সমর্থ হইলেন; এবং ১৮৮৭ সালে পূর্ণচন্দ্ৰ বৰ্ময় অংশ ক্ৰয় করিম্না আপনি সমগ্র কারবারটীর মালিক হইলেন।

 এদিকে বৈবয়িক উন্নতি হইতে লাগিল ধটে, কিন্তু পরিবার বে। ভাঙ্গিতে অ'রম্ভ করিয়াছিল তাহ৷ আর থামিল না॥ 'লাহিড়ী মহাশয়ের কনিষ্ঠ পুত্ৰ বিনয়কুমার অনেক দিন হইতে মালেরিয়া জরে ভূগিলেছিল। একটু বিশেষ বোধ হওয়াতে লাহিড়ী মহাশস্ত্র সপরিবারে কৃষ্ণনগরের বাড়ীতে গিরা। কিছুদিন ছিলেন। ‘ভাহার ফল এই হইল। ধে, বিনয়ের ম্যালেরিয়া জর আবার প্রবল আকারে প্রকাশ পাইল; আবার তাহাকে লইয়া স্থানান্তরে যাওয়া অবখক হইল। এইবার ত’হায়া মুঙ্গেরে গেলেন। সেখানে তাহার পীড়ার। উপন্যম হইল না। ঐ ১৮৮৫ সালের ২৩শে আগষ্ট দিবসে বিনয় সেখানে অকালে কালগ্ৰাসে পতিত হইল। সকলে ভগ্ন-হৃদয়ে আবার কলিকাতাতে ফিরিয়া আাসিলেন।

 তাহারা কলিকাতাতে ফিরলে Wামরা অনেকে শোক প্রকাশ করিবার জন্য শাহিড়ী মহাশয়কে দেখিতে গেলাম। আমার স্মরণ শাছে সমাগও ব্যক্তি দিগের মধ্যে একন বলি লন—“কি হঃখের কথাএত গুলি সস্তান চক্ষের উপর মিলাইয়া গেল।• তাহাতে দেই সাধু পুরুষ বলিলেন —‘ও কথা কেন