পাতা:রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ.djvu/৪৬৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৩৮২
রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ

সালে তিনি স্বেপিার্জিত অর্থে কলিকাতার হারিসনরোডে একটী সুরম্য হৰ্ম্ম নির্মাণ করলেন। তাহাতে বৃদ্ধ পিতাকে স্থাপন করিলেন ; দাস দাদীর, দ্বারা পরিবৃত করিয়া দিলেন ; পরিচর্য্যার অবশিষ্ট রহিল না । জ্যেষ্ঠ কন্যা লীলাবতী এবং পুত্রদ্বয়, শরৎকুমার ও বসন্তকুমার, সৰ্ব্বাস্ত;করণে পিতার সেবা করিতে লাগিলেন। বর্মাতা ভাগতচিত্ত হইয়া বুদ্ধ শ্বশুরের সেবা করিতে লাগিলেন । কিন্তু হার! আমাদের মনে হইত লাহিড়ী মহাশয়ের প্রাণ যেন কিছুতেই বসিতেছে না ! পিঞ্জরাবন্ধ বিহঙ্গমের স্তায় উড়িয়া যেন কোন দেশে য:ইতে চাহিতেছে ! সৰ্বদা বাড়ীর বাহিরে যাইতে চাহিতেন ; যাহাদিগকে ভালবাসেন তাহাদিগকে দেখিতে চাঁহি তেন ; আমাদের কাহারও না কাহারও বাড়ীতে যাইতে চাইতেন ; মধ্যে মধ্যে প্রিয়শ্যি ক্ষেত্রমাহন বস্থর বাড়ীতে গিয়া গুই এক দিন যাপন করিতেন ; কিন্তু তাহার শরীরে বল ছিল না বলিয়া পরিবার পরিজন অনেক সময়ে যাইতে দিতেন না । 'ইহ' লইয়া অনেক দিন বিবাদ উপস্থিত হইত।

 বোধ হয় এমারসন একস্থানে বলিয়াছেন যে সচরাচর লোকে নিজের প্রতি অপর লোকের ব্যবহারের কি ক্রটা হইল তাহাই দেখে! ঐ অমুক আমাকে দেখিল না, অমুক আমাকে সাহায্য করিল না, অমুক আমার খবর লইল না, ইত্যাদি ইত্যাদি ; কিন্তু সাধুদের প্রকৃতি অন্ত প্রকার ; অপরের ব্যবহারের প্রতি তাছাদের দৃষ্টি তত নয়, যত নিজেদের ক্রটায় প্রতি। আমি অমুককে দেখিলাম না, ঐ অমুকের খবর লওর इहेण नां, ७ई সম, অমুককে সাহায্য করা উচিত ছিল, করা হইল না, ইত্যাদি। রামতনু লাহিড়ীতে আমরা,এই সময়ে তাহাঁই দেখিতাম। অনেক দিন গিয়াছে তাহাকে দেখা হয় নাই, অমৃতপ্ত অন্তরে যাইতেছি, ভাবিতেছি ধাহাকে প্রতিদিন দেখা উচিত তাহাকে এতদিন পরে দেখিতে যাইতেছি, মুখ দেখাইব কি করিয়া ; কিন্তু যেই উপস্থিত হইয়া প্রণাম কম্নিয়াছি, অমনি, আর এক ভাব —“ওহে দেখ, আমার কি অপরাধ হয়ে যাচ্চে মা লক্ষ্মীরা আমাকে এত ভালবাসেন, আমি যে একবার গিয়া তাহাদিগকে দেখে আসবে, তা হয় না।”তোমরা কাজে সৰ্ব্বদা वाड তোমরা কি সৰ্ব্বদা আসতে পার! আমারই গিয়ে দেখে মৃগাকৰ্ত্তব্য "মনে ভাবিলাম, হ৷ হরি। উলটাে বিচার! একেই বলে শিষ্টতা! একেই বলে সাধুতা !ঠিক ! ঠিক । যিনি পরের ভালটা ও নিজের মন্দটা দেখেন তিনিই সাধু।