প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:রূপান্তর-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১১৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রূপান্তর : টীকা পাঠান্তর : "r ১ ইতরতাপশতানি’, ‘ইতরকর্মফলানি’ নানা পাঠান্তর আছে। অন্যত্র যদৃচ্ছয়া’, ‘বিতর' স্থলে 'বিলিখ’, ‘অরসিকেষু স্থলে ‘অরসিকে তু’, ‘রসস্ত’ স্থলে “রহস্য’ বা ‘কবিত্ব’। কাব্যসংগ্রহে প্রথম চরণ : কণকস্ত চঞ্চুর্যদি স্বর্ণযুক্ত র্তারি পরে করিবেক পরকে বিস্মরি কিছুতে কাব্যসংগ্রহ-ধৃত পাঠান্তর দ্রষ্টব্য : বড় রত্ন, ১ কাব্যসংগ্রহ-ধুত পাঠ : পুনর্দিবা গ্রন্থপরিচয় দ্রষ্টব্য । নবরত্নমালা গ্রন্থে সামান্য পাঠভেদ আছে । উদধূতি-চিহ্নিত অংশ ভারতচন্দ্রের বিদ্যাস্থদের হইতে গৃহীত। পাঠান্তর : ‘ভেসে’ স্থলে ‘ভাসি’। SS X© ৷ মন্তব্য ॥ সংকলিত সংস্কৃত শ্লোকাবলির পাঠ নানা আধারগ্রন্থে নানারূপ, কদাচিৎ রচয়িতা সম্পর্কেও মতভেদ আছে । রবীন্দ্রনাথ-ধূত পাঠ অথবা যে পাঠ তিনি ব্যবহার করিয়াছেন জানা যায়, তাহাই এ স্থলে সংকলিত । ২-৯, ১১-১৫, ১৮-২১, ২৩, ৩০ ও ৩১ -সংখ্যক শ্লোক ‘শ্ৰীডাক্তরযোহনহেবরলিন'-কর্তৃক সমাহৃত ও মুদ্রাঙ্কিত কাব্যসংগ্রহ (১৮৪৭, পরবর্তী । পরিবর্ধিত সংস্করণ : ১৮৬১-৬২ খৃস্টাব্দ) গ্রন্থে দেখা যায়। উপরে পাঠভেদগুলি নির্দেশ করা হইয়াছে ; তাহা ছাড়া ইহাও উল্লেখযোগ্য যে, দ্বাদশ শ্লোকের পাঠ প্রমাদপূর্ণ মনে হওয়াতেই নবরত্নমালা বা স্বভাষিতরত্নভাণ্ডাগার -ধ্ৰুত পাঠ গৃহীত । ১৭, ১২, ১৬, ১৭, ২২-২৯ ও ৩২ -সংখ্যক শ্লোক স্বভাঘিতরত্নভাণ্ডাগার গ্রন্থে০ যথাযথ পাওয়া যায়, কেবল চতুৰ্বিংশ শোকের একাংশে o পঞ্চম (১৯১১) ও প্রচলিত অষ্টম সংস্করণ (১৯৫২) দেখা হইয়াছে। છે છ ૨