প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:রূপান্তর-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১৩৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


2 o “ঘরে আর আসে না সে— কোনো পরিশ্রম নাহি ক’রে নিজে নাকি খেতে পায় রোজ রোজ মুখে পেট ভরে । না উঠিতে শয্যা হতে মিলি দলবলগুলা-সাথে করতাল বাজাইতে আরম্ভ করেন অতি প্রাতে । খেয়েছে লজ্জার মাথা, জ্যাস্তে তারা মড়ার মতন— ঘরে আছে ছেলেপিলে, তাদের তো না করে যতন । স্ত্রী তাদের পড়ে আছে— হতভাগী লজ্জা’-দুঃখ-ভরে । অভিশাপ দিতে দিতে মাথায় পাথর ভেঙে মরে ।” ‘ভাগ্যে যাহা আছে তাহা’– তুকা বলে, “থাক সহ ক’রে।’ У о ‘হেথা কেন আসে লোকগুলা, তাদের কি কাজ নাই১১ হাতে ? তুকা কহে, ঈশ্বরের তরে ব্ৰহ্মাগু১২ মিলেছে মোর সাথে । ১৩ভালোমুখে দু-চারিট কথা না জানি তাহে কী ক্ষতি অাছে ॥১৩ কোথাও যায় না যারা কভু, ভালোবেসে আসে মোর কাছে । এও সে বাসে না ভালো— হায় ; ভাগ্য কিবা আছে এর বাড়া । সকল লোকের পাছে পাছে” কুকুরের মতো করে তাড়া।’ ১২১