প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:রূপান্তর-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৬০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রূপান্তর মদনদহন সময় লজৰন করি নায়ক তপন উত্তর অয়ন যবে করিল আশ্রয় দক্ষিণের দিকবালা হেরিয়া তাহাই ধীরে ধীরে ফেলিলেন বিষঃ নিশ্বাস ॥ ২৫ অমনি উঠিল ফুটি অশোকের ফুল, অমনি পল্লবজালে ছাইল পাদপ ॥ ২৬ নবীন পল্লব দিয়া রচি পক্ষগুলি ভ্রমর-অক্ষরে লিখি মদনের নাম নবচুতবাণচয় নির্মিল বসন্ত ॥ ২৭ মনোহরবর্ণময় কণিকার ফুল ফুটিল, নাইক তাহে সুবাসের লেশ । বিধাতা সকল গুণ দেন কি সবারে ॥ ২৮ মর্মর শবদ করি জীর্ণ পত্রগুলি ফেলে ধীরে বনস্থলী বায়ুর পরশে, মদোদ্ধত হরিণের করে বিচরণ পিয়ালমঞ্জরী হতে রেণু ঝরি ঝরি যাদের বিশাল আঁখি হয়েছে আকুল ॥ ৩১ যখন মদন বসি বনশ্রীর কোলে পুষ্পশরে গুণ তার করিল বন্ধন স্নেহরসে মগ্ন হল যত ছিল প্রাণী ॥ ৩৫ একই কুসুমপাত্রে ভ্রমর প্রিয়ার পীত-অবশেষ মধু করিল গো পান। স্পর্শনিমীলিতচক্ষু মৃগীর শরীরে কৃষ্ণসার শৃঙ্গ দিয়া করিল আদর ॥ ৩৬ 8 ግ