পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/১২৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


স্বপ্নে । >文》 ........v^^ Ayuuvunu m^^^^^^^^^^^^^^^^^^^^^^^^ বালকের বক্ষঃস্থল দরদর অশ্রধারায় প্লাবিত হইতেছে ! বালক দিবারাত্ৰি কঁাদিতেছে, আর ডাকিতেছে,—“কাঙ্গালের ঠাকুর । কোন অপরাধে আমায় পায়ে ঠেলিলে ? তোমার চরণে আশ্রয় পাইব বলিয়াই তো সন্ন্যাসাশ্রম গ্রহণ করিয়াছিলাম ! কেন তুমি বিরূপ হইলে! শুনিয়াছি—নিষ্কাম-ভাবে ডাকিলে তুমি কখনই অবহেলা করিতে পার না। কিন্তু নাথ ! --আমার তো কোনও কামনা নাই ! তবে আমায় কেন এ ভীষণ পরীক্ষা-পারাবারে নিক্ষেপ করিলে ?” - গভীর নিশীথ চারিদিক নিস্তব্ধ। কচিৎ দূরান্তে ঝিল্লীরব শুনা যাইতেছে। কচিৎ পেচকের কর্কশ স্বরে এক এক বার প্রকৃতির শ্বস্তীরতা ভঙ্গ হইতেছে। কচিৎ অপরিচিত জনের পদশব্দে অথবা নিশাচর জন্তুর গতিবিধিতে সারমেয়কুল চীৎকার করিয়া উঠিতেছে। এ ভিন্ন, কোথাও জনপ্রাণীর সাড়াশব্দ নাই। কেবল একাকী কারাগারের একটা প্রকোষ্ঠে বসিয়া, বালক আপন মনে ডাকিতেছে,—“কোথা অনাথের নাথ ! কোথা কাঙ্গালের আশ্রয়! একবার দেখ দাও । এ বন্ধন-যন্ত্রণ। আর যে সহ হয় না-প্রভু!" তিন দিন তিন রাত্রি একই ভাবে কাটিয়া গেল। রাজকৰ্ম্মচারীরা যথাকলে অন্নজল প্রদান করিয়া গেল। কিন্তু বালক কোনও দিকেই ক্ৰক্ষেপ করিল না। আহার নাই, নিদ্রা নাই, কোনদিকেই দৃকপাত নাই। বালক অনন্তমনে কেবলই জগবন্ধুকে ডাকিতে লাগিল । . তৃতীয় দিবস রাত্রিকালে বালকের অবসর দেহ তন্ত্রাবোরে কক্ষতলে লুটাইয়া পড়িল। তখন কে যেন আসিয়া বালকের }}