পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/১৪২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


>Sb" লক্ষণ-সেন । e সঙ্গীতের পাদপূরক পংক্তি ধ্যানে বসিয়া আমি প্রাপ্ত হইয়াছি । এই বলিয়। আপনি আমার চক্ষের সমক্ষে ঐ পংক্তি লিখিয়৷ রাখেন।’ জয়দেব —“আমি কি আহারে বসিয়াছিলাম ?" পদ্মাবতী।–“এই দেখুন—আমার জন্য আপনি প্রসাদ রাখিয়া গিয়াছেন ।” পদ্মাবতীর বাক্যে এবং পাদপূরক পংক্তি প্রভৃতি দৃষ্ঠে জয়দেবের বিস্ময়ের অবধি রহিল না। তিনি বুঝলেন,— ‘কোনও এক অলৌকিক শক্তির মহিম। ভিন্ন এ আর অন্ত কিছুই নহে ’ মনে মনে কহিলেন,-“এই অভাগীকে আর ভগবানকে পদ্মাবতী অভিন্ন-ভাবে ভজনা করে । জগবন্ধু তাই বুঝি অজ এই অভাগার বেশে আবিভূত হইয়া, পদ্মাবতীকে দেখা দিয়া গিয়াছেন! পদ্মাবতী ! তুমি ধষ্ঠ। —তুমি ভগবানকে প্রত্যক্ষ করিয়াছ !” জয়দেব কহিলেন,—“পদ্মাবতী ! কৈ—সে ভুক্তবিশিষ্ট কৈ ?” পদ্মাবতী পতিকে তাহ দেখাইয়া দিলেন। জয়দেব গুক্তিগদগদ চিত্তে সেই প্রসাদের কণমাত্র গ্রহণ করিলেন । প্রসাদের কণামাত্র গ্রহণ করিতেই তাহার উদর পূর্ণ হইল। সে যেন অমৃত । তেমন সুধাস্বাদ তিনি যেন জীবনে কখনও প্রাপ্ত হন নাই। জয়দেব উচ্চৈঃস্বরে কহিলেন,–"পদ্মাবতী ! আমার সার্থক জন্ম যে, আমি তোমার ন্যায় পুণ্যবতীকে পত্নীরূপে প্রাপ্ত হইয়াছিলাম। ভগবান আজ তোমাকে সাক্ষাৎ দিতে আসিয়া এ দীনের পর্ণকুটির পবিত্র করিয়া গিয়াছেন । তাহার প্রসাদ-কণিকা পাইয়৷ তাজ আমার দেহ পবিত্র হইল।”