পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/১৭৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


> १२ লক্ষণ-সেন অন্যান্ত অমাত্য-গণও নবদ্বীপে আসিয়া উপস্থিত হইয়াছিলেন । উৎসব-উপলক্ষে দিগেদশের করদক্ষিত্র রাজন্তবর্গকেও আমন্ত্রণ করা হইয়াছিল। নবদ্বীপাধিপতির নবদ্বীপে আসিয়৷ পেছিবার এক পক্ষ পরে এক দরবার আহত হইল। কোন প্রদেশ কিরূপভাবে শাসিত হইবে, পত্রমিত্রগণের সহিত পরামর্শ করিয়া দরবাপে সেই আদেশ প্রচার করা হইবে । অধিকন্তু রাজ্যজয় উপলক্ষে মহারাজ লক্ষ্মণ-সেনের মনে যে কতকগুলি সদনুষ্ঠানের সঙ্কল্প জাগিয়া উঠিয়াছিল, সদস্যগণের অভিমতক্রমে সেই সকল সৎকৰ্ম্মও সমাধানের ব্যবস্থা হইবে। মহারাজের অভিপ্রায়ক্রমে দরবার কাশীনরেশকে কাশী রাজ্যে পুনঃপ্রতিষ্ঠিত করিলেন। কাশীনরেশ নবদ্বীপাধিপতি। আতুগত্য সর্বপ্রকারে মানিয়া লইলেন । রাজা জয়সিংহকে মিথিলার করদরাজ-রূপে পুনঃপ্রতিষ্ঠার প্রস্তাব উত্থাপিত হইল। অল্পসংখ্যক সদস্য মাত্র তাহাতে আপত্তি জানাইলেন। সৰ্ব্ববাদিসম্মতরূপে সে প্রস্তাব পরিগৃহীত হইল না। রাজা জয়সিংহও মিথিলার পুনরাধিপত্য-লাভে ইচ্ছুক ছিলেন না। তিনি আপনা-আপনিই কহিলেন-- “আমার আর রাজ্যৈশ্বর্ঘ্যে প্রয়োজন নাই। জীবনের শেষ কয় দিন আমাকে কোনও তীর্থস্থানে বাস করিতে দিবেন, ইহাই আমার প্রার্থনা।” সেই প্রার্থনাই পরিগৃহীত হইল। আপাততঃ নবদ্বীপাধি পতির কোনও অমাত্যের হস্তে মিথিলার শাসনভার ন্যস্ত থাকিবে। তবে শোভার বা বীরসিংহের যদি কখনও সন্ধান