পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/১৭৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


248 লক্ষণ-সেন সকলের সকল অভাব পূরণ করিতে লাগিলেন। স্বৰ্য্যাস্ত পর্য্যন্ত এইভাবে দানক্রিয়া চলিবার ব্যবস্থা ছিল । আর দণ্ডেক-কাল অবশিষ্ট। সুর্য্যদেব পশ্চিম-গগনে জ্বলন্ত অগ্নিপিণ্ডবং ঢলিয়া পড়িতেছেন। সকল প্রার্থই আপন আপন প্রার্থনাকুরূপ দ্রব্য-সন্তার লইয়। প্রস্থান করিতেছে! দরবার ভঙ্গ হইবার উপক্রম হইয়াছে ; মহারাজ লক্ষ্মণ-সেন গাত্ৰোথান করিবার উদ্যোগ করিতেছেন। এমন সময়, “মহারাজ ! আর মুহূৰ্ত্ত মাত্র অপেক্ষ করুন",— তোরণ-স্বার হইতে এইরূপ এক উচ্চ চীৎকার শ্রুতিগোচর হইল। সভাস্থ সকলেই উৎকণ্ঠিত চিত্তে সেই দিকে চfহয়। রহিলেন । দেখিতে দেখিতে ত্বরিতপদে এক ব্যক্তি সিংহাসন-সমীপে দণ্ডায়মান হইল । রুক্ষ্ম কেশ, পরিধানে ছিন্ন-মলিন বেশ । সৰ্ব্বাঙ্গ ধূলিধূসরিত। পাগলের ন্যায় ছুটিতে চুটিতে আসিয়া আগন্তুক বলিতে লাগিল,—“মহারাজ ! অনেক দূর হইতে আসিতেছি। অনেক আশা করিয়া আসিয়াছি । আমার প্রার্থনায় উপেক্ষা করিও না ।” - সকলে পাগল বলিয়। উপেক্ষা করিবার চেষ্টা পাইলেন। প্রহরীর শু{হকে আটক করিবার চেষ্টা পাইল। ধন্যধ্যক্ষ কহিলেন-—“যদি তোমার কিছু আবখ্যক থাকে, কত টাকা চাও—কি চাও, শীঘ্র পল !" আগস্তৃক হে হো করিয়া হাসিয়া উঠিল ; হাসিতে হাসিতে কহিল,-"হা-হা-হা ! টাকা ? টাকাও যা-ধূলাও তা।” সকলে আশ্চৰ্য্যাম্বিত হইলেন। মহারাজ মনে মনে