পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/২০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


লক্ষণ-সেন । روا لإ যদি কখনও মায়ের মুখখন দেখিবার আশা ও থাকিত, আমি সেখানে গিয়া কাহারও দাসী-বাদী হইয়া থাকিতাম ! কিন্তু একবার দান করিলে আর ফিরিয়া দেখিতে পাইব না—সে যন্ত্রণা কি কখনও সহ্য হয় ? - ব্রাহ্মণ ।–“সে সব জ নিয়া শুনিয়াই তো প্রতিজ্ঞায় আবদ্ধ হইয়াছিলে! তবে আর প্রথা অনুশোচনায় ফল কি ?” কাত্যায়ী —“আমার বুদ্ধি-শুদ্ধি লোপ পাইয়াছে। ধ।’ ভাল হয়, তাই হোকৃ।" ব্রাহ্মণ —“যখন আর উপায় নাই, নবম বর্য বয়সের মধ্যে কন্যাকে জগন্নাথের পাদপদ্মে সমর্পণ করিয়া আসি বার জন্য যখন প্রতিজ্ঞায় আবদ্ধ আছি, তখন আর কাল-বিলম্ব করিবার প্রয়োজন নাই। এখন, কল প্রত্যুষেই যাতে রওনা হতে পারি, তারই উদ্যোগ-আয়োজন কর।” “কাল প্রত্যুযেই!” কথাটা শুনিয়া কাত্যায়নী আবার শিহরিয়া উঠিলেন। তাহার মনে হইল,-"এরূপভাবে জীবন্তে বিসৰ্জ্জম দিয়া আসা অপেক্ষ ব্যায়রাম-পীড়ায় কন্যার মৃত্যু হওয়া সহস্র গুণে শ্রেয়ঃ ছিল । হা জগবন্ধু ! হা জগন্নাথ! তুমি এ কি করিলে !” কিন্তু কোনও কথাই তিনি আর পতিকে মুখ ফুটিয়া কহিতে পারলেন না। কেবল একবার মাত্র জিজ্ঞাসা করিলেন,-“কল কেন ? আপনি বলিয়াছিলেন,— পঞ্চমীর দিন নবদ্বীপ হইতে রাজার লোকজন ঐক্ষেত্রে যাইবে; সেই দিন সেই সঙ্গে যাওয়াই শ্রেয়ঃ । কিন্তু আজ আবার দু'দিন আগে রওনা হওয়ার কথা কেন কহিতেছেন ?” ব্রাহ্মণ।–“সে অনেক কথা। পূর্ণিমায় গঙ্গাস্নানে গিয়া