পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/২০৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কমলমণি | २०é SJSJSAAAA AASAASAASAASAASAASAASAAAS هرمی مبهمی مکی در خیابانهای برای تهیه দৃষ্টিপাত করিলে, মনে হয়- অনেকুক্ষণ তাহার প্রাণবায়ু বহির্গত হইয়া গিয়াছে। কিন্তু অনেকক্ষণ পরে এক এক বার তাহার অন্তঃস্থল ভেদ করিয়া একটি করুণ-ধ্বনি বহির্গত হইতেছে। আর তাহাতেই বুঝা যাইতেছে,—তখনও প্রাণবায়ু বহির্গত হয় নাই। সে ধ্বনি—“একবার দেখা হবে ন!” পীড়ার সূচনা ইষ্টতে সারারাত্রি ঐ একমাত্র বুলি। রোগিণী সকল সময়ই নিম্পন্দ অবস্থায় পড়িয়া আছে ; মধ্যে মধ্যে এক এক বার কেবল ঐ ধ্বনি তাহার প্রাণের অস্তিত্বের পরিচয় দিতেছে। এই অবস্থায় মুমূধু কমলমণিকে স্পর্শ করিয়া বৃদ্ধ রায় মহাশয় গঙ্গাতীরে বসিয়া আছেন,— শেষ মুহুর্তের প্রতীক্ষা করিতেছেন । সহস, রোগীর প্রশ্নের সঙ্গে সঙ্গে,—‘একবার দেখা হবে না !’— এই হতাশ-প্রলাপের সঙ্গে সঙ্গে,—তটভূমি প্রকম্পিত করিয়া, গম্ভীর-কণ্ঠে উত্তর আসিল,—“দেখা হবে ! অবশ্যই দেখা হবে। সতী-লক্ষ্মীর কামনা কখনই অপূর্ণ থাকে না।" সেই অপরিচিত কণ্ঠের উত্তর শুনিয়া বৃদ্ধ রায় মহাশয় চমকিয়া উঠিলেন। ভয়বিস্ময়-বিমিশ্র কণ্ঠে জিজ্ঞাসা করিলেন,-“কে তুমি !" “আমি যেই হই, তাশঙ্কার কোনও কারণ নাই। র্যাহাকে সুমুধু মনে করিয়া তীরস্থ করিয়াছেন, তাহার মৃত্যুর এখনও অনেক বিলম্ব আছে । তিনি সতী-লক্ষ্মী ; তাহার সাধ অপূর্ণ থাকিতে র্তাহার মৃত্যু হইবে না। উইরে যখনই মৃত্যু হইবে, পতির চরণে মস্তক রাখিয়া দিব্যধামে গমন করিবেন। এখনও সে দিনের বিলম্ব আছে । আপনি আর অনর্থক তীরে বসিয়া কষ্ট্র পাইবেন না। অনুমতি করুন, আমি মা-জননীকে ক্রোড়ে লইয়। স্থাপনার কুটিরে রাখিয়৷ আসি।” - >v *