পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/২২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


९९२ লক্ষণ-সেন । ३ --ഹ~~്സWikitanvirBot (আলাপ). സഹ কবি বিরচিত এই গীতগোবিন্দ এই ধরাধামে শৃঙ্গরসারস্বত রস বিতরণ করিতেছে, সেই দিন হইতে হে মধু ! তোমার চিন্তায় আর মাধুৰ্য্য নাই ; হে শর্করা ! তুমি কঙ্কর-রূপে প্রতীয়মান হইতেছ ; হে অমৃত ! তুমি মৃতবৎ হইয়াছ ; হে ক্ষীর ! তোমার আস্বাদ জলের ন্যায় হইয়া গিয়াছে ; হে দ্রাক্ষা ! তোমার প্রতি আর কে চাহিয়া দেখিবে ? হে আম্রবৃক্ষ ! তুমি কঁদি ; হে কান্তাধর! তুমি পৃথ্বীতলে প্রবেশ কর। ভোজদেবের ঔরসে এবং বামাদেবীর গর্ভে র্যাহার জন্ম, সেই জয়দেব কবি বিরচিত এই গীতগোবিন্দ-কাব্য পরাশর প্রভৃতি পূৰ্ব্বতম আচাৰ্য্য-বান্ধববৃন্দের কণ্ঠ ভূষিত করুক।” পরবৰ্ত্তিকালে এই উক্তি শ্ৰীশ্ৰীগীতগোবিন্দ গ্রন্থের উপসংহারভাগে সংগ্রথিত হইয়া আছে। বুধমণ্ডলী আজিও সংশয়াম্বিত,— এ রচনা মহাকবি জয়দেবের ; ন!—রাজাধিরাজ লক্ষ্মণ-সেনের ।

  • , =

অষ্টচত্বারিংশ পরিচ্ছেদ । সাক্ষাতে । জয়দেব কেন্দুবিশ্বে গমন করিলেন। কিন্তু জয়দেবের স্মৃতি নবদ্বীপে উজ্জ্বল হইয়া রহিল। তিনি নবদ্বীপে কৃষ্ণপ্রেমের যে মন্দাকিনী-খার প্রবাহিত করিয়া গেলেন, ক্রমশঃ তাহাসংক্সমূী লইয়া সমগ্র দেশকে প্লাবিত করিয়া তুলিল। মহারাজ লক্ষ্মণ-সেনের প্রাণে-দে প্রেমের এক মৃতন তবুঙ্গ উখিত হইল । রাজকাৰ্য্যে সময় অতিবাহিত করা