পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/২২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সাক্ষাতে । ९९७ অপেক্ষা ভগবত্তত্ত্বালোচনায় কালাতিপাত করাই এখন তিনি শ্ৰেয়ঃ বলিয়া মনে করিলেস। দিনের পর যতই দিন যাইতে লাগিল, বৎসরের পর যতই বৎসর অতিবাহিত হইতে লাগিল, কৃষ্ণ-প্রেমের পীযুষ-পানে ততই তাহার প্রাণ বিভোর হইয়। পড়িল । শেষ এমন হইয়। দাড়াইল, মহারাজের আর রাজকার্য্যের তত্ত্বাবধান ভাল লাগে না ;-রাজনীতির কথা কেন্থ উত্থাপন করিলে মহারাজ বিরক্ত হন। সেনাপতি সংগ্রাম-সিংহ একদিন মহারাজকে সেই বিষয় স্মরণ করাইতে আসিলেন ; কহিলেন,—“রাজন্‌! অপরাধ গ্রহণ করিবেন না। আজ আপনার সহিত আমি কয়েকটি বিশেষ প্রয়োজনীয় বিষয়ের পরামর্শ করিতে আসিয়াছি। একটু অবসর প্রার্থনা করি।” - মহারাজ লক্ষ্মণ-সেন স্নেহ-সন্তাষে কহিলেন,—“কেন সংগ্রাম-সিংহ!—আমার নিকট কোনও কথা বলিবার পূৰ্ব্বে আজি এত সঙ্কোচের ভাব প্রকাশ করিতেছ কেন ? তোমার যাহা বলিবার আছে, অকপটে বলিতে পার।" সংগ্রাম-সিংহ ।–“মন্ত্রী মহাশয় আপনার নিকট সকল কথা বলিবার অবসর পান না। তাই কয়েকটী কথা আপনাকে জানাইবার ভার আমায় গ্রহণ করিতে হইয়াছে।’ লক্ষ্মণ-সেন –“কি বিষয় ? যাহা জানাইবার আছে, নিঃসঙ্কোচে জানাইতে পার।" সংগ্রাম-সিংহ তখন বলিতে গেলেন,—“রাজন! এক একবার রাজকাৰ্য্যের তত্ত্বাবধান কি প্রয়োজন নয়? এক এক বার আপনি বদি রাজকাৰ্য্যের প্রতি একটু দৃষ্টি রাখেন —”