পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/২৫৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বক্তিয়ার-সকাশে । ९ ¢¢ ്ബara.ബ് ബ്ബ.'\.ബാ বলবন্তসিংহ কহিলেন,-“নবদ্বীপ-সাম্রাজ্যের মধ্যে সৈন্তপরিচালন আপাততঃ সম্ভবপর নহে ।” বক্তিয়ার শিহরিয়া উঠিলেন -“বলেন কি ? আপনাদের ন্যায় যোদ্ধবর্গের সাহায্য পাইলেও আমরা নবদ্বীপ-সাম্রাজ্যে প্রবেশ করিতে সমর্থ হইব না ? এ বড় আশ্চর্য্যের কথা !" বলবন্তসিংহ —“রাজ্য সুরক্ষিত। কোনও পথ দিয়া প্রবেশের সুবিধা নাই। বিশেষতঃ, প্রঞ্জাবৰ্গ একান্ত রাজামুগত ও রাজভক্ত। মহারাজ লক্ষ্মণ-সেনের বিরুদ্ধে কেহ অস্ত্ৰধারণ করিতে উ% ত হইয়:ছে শুনিলে, প্রজামাত্রেই উত্তেজিত হইয়া উঠিবে। অন্ধুশেও এ সংবাদ প্রচারিত হইলে আর রক্ষা থাকিবে না।" বক্তিয়ার চিন্তিতভাবে জিজ্ঞাসা করিলেন,—“তবে উপায় !" বিশ্বেশ্বর উত্তর দিলেন,—“উপায় ত্রিলোচন বসু যদি কিছু করিতে পারেন ।” বলবন্তসিংহ। —“কিন্তু ত্রিলোচন বসুকে আজিও আমরা চিনিতে পারিলাম না । লোকটা ঘোর অর্থপিশাচ । কিন্তু কায়দ ছড়িতে চাহে না ।” বক্তিয়ার।–“ত্রিলোচন কেমন লোক, আমার নিকট উপস্থিত করিলে, আমি সব বুঝিয়া লইব । মহারাজ লক্ষ্মণসেনের প্রতি তাহার কিরূপ ধারণা, তাহাও বুঝিতে পারিব।” বিশ্বেশ্ববু।–“মহারাজ লক্ষ্মণ-সেন ত্রিলোচনকে সৰ্ব্বস্বাস্ত করিয়াছেন। তজ্জন্ত ত্রিলোচন মনে মনে প্রতিহিংসায় জলিতেছে।” বলবন্তসিংহ কহিলেন,-“কিন্তু—” বক্তিয়ার বাধা দিয়া বলিলেন,-"আমি আর কিন্তু শুনিতে