পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/২৬৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


९७१ লক্ষণ-সেন । না । যাহা বলিতেছি, প্রণিধান করিয়া দেখুন। রাজ্য যেরূপ সুরক্ষিত, প্রজাবৰ্গ যেরূপ রাজার একত্তি অতুগত, সে পরিচয় আপনি সম্পূর্ণরূপে পাইয়াছেন। সে রাজ্য অধিকার করা যে আপনার বাহুবলের সমর্থ্যাতীত, তাহাও আপনি বুঝিয়াছেন । সে ক্ষেত্রে যে একটী মাত্র পথ আছে, তাহাই আমি জানাইতেছি। সে পথ গ্রহণে যদি আপনার অনভিমত হয়, গ্রহণ করিবেন না। অভিমত হয়, ভালই।" ত্ৰিলোচন অনেক ভাৰিয়া চিন্তিয়া এ পথ নিৰ্দ্ধারণ করিয়াছিলেন । সাপও মরিবে, লাঠিও ভাঙ্গিবে না,— ইহাই তাহার কল্পনা ছিল । বক্তিয়ার —“ভাল, আপনি কি বলিতেছিলেন, বলুন " ত্রিলোচন কহিতে লাগিলেন,—“মহারাজ লক্ষ্মণ-সেনের ন্যায় অতিথিসৎকার-পরায়ণ নৃপতি এ জগতে দুলভ । অতিথিসৎকারে তাহার দ্বার অবারিত । আপনি যদি তাহার আতিথ্যগ্রহণ জন্য উৎসুক হন, প্রার্থনা জ্ঞাপন করেন, মহারাজ নিশ্চয়ই আপনাকে সম্বৰ্দ্ধনা করিবেন। এ ভিন্ন আপনার নবদ্বীপ-রাজ্যে উপস্থিত হইবার আর কোনই উপায় নাই। আমার ইচ্ছা— যদি মহারাজ লক্ষ্মণ-সেনের রাজ্যদর্শন আপনাদের অভিপ্রেত হয়, মহারাজের সমীপে আপনাদের অভিপ্রায় জ্ঞাপন করুন | মহারাজ নিশ্চয়ই অনুমতি প্রদান করিবেন ।" ত্রিলোচনের বাক্য শুনিতে শুনিতে, বক্তিয়ার এক একবার রোষে উত্তেজিত হইয়া উঠিলেন। এক একবার লজ্জায় মস্তক অবনত করিলেন। এক একবার দন্তে দস্তু ঘর্ষণ করিতে লাগিলেন। মন সরিল না । ত্রিলোচনের প্রস্তাবে মন সরিল না।