পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৩০৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অনুতাপে । ○o○ SJJJA AAAA AAAA S AAAAAMAee eMMS AMJMAMMMAMA AMMMAMA AJASAMA SJSAMAAA AAAA AAAAA নাই । সুতরাং নৌকার মাঝিমাল্লাদিগের উপর তাহার তত্ত্বাবধানের ভার ন্যস্ত রাধিয়াই বক্তিরা নিশ্চিন্ত ছিলেন। বক্তিয়ারের বিশ্বাস ছিল,—তিনি ত্রিলোচনের হৃদয়ে যে আশার লহর তুলিয়া দিয়াছেন, ত্ৰিলোচন সেই লহরেই নাচিতে থাকিবেন। তিন দিন পর্য্যন্ত ত্রিলোচনের কোনরূপ ভাব-পরিবর্তন হয় নাই। চতুর্থ দিবসে ত্রিলোচনের চিত্ত চঞ্চল হইয়া উঠিল। ত্রিলোচন নৌকায় বসিয়া আছেন ; শুনিতে পাইলেন, কে যেন বলিতেছে,—“অসদুপায়ে উপার্জিত অর্থে সদনুষ্ঠানে বিঘ্ন উৎপাদন করে, কৰ্ম্ম পণ্ড হয় ।” গবাক্ষ-পথ দিয়া ত্রিলোচন চাহিয়া দেখিলেন,-দুইটী ভদ্রলোক ঘাটে স্নান করিতে করিতে ঐ কথার আলোচনা করিতেছেন। বঙ্গদেশে , মুসলমানদিগের প্রবেশে । বাধা দিবার জন্য একটী দল সংগঠিত হইয়াছিল। অর্থ-সংগ্রহের উদেখে তাহারা জয়দেবের গৃহ লুণ্ঠন করিতে গিয়াছিল। কিন্তু কৃতকাৰ্য্য হইতে পারে নাই। জয়দেব তাহাদিগকে বুঝাইয়া দেন,-“সদুদেশু-সাধনসঙ্কল্পে অসদুপায় অবলম্বন করা কখনই শ্ৰেয়ঃ মহে ।” স্বানার্থী ভদ্রলোকদ্বয়ের কথার প্রসঙ্গে জয়দেবের উক্তি শ্রবণ করিয়া ত্রিলোচনের ভাবান্তর উপস্থিত হয় । - ত্রিলোচন মনে মনে কহিলেন,—“আমি তবে এ কি ৷ করিতেছি ? শান্তির জন্য অর্থের অন্বেষণ করিতেছি ;–কিন্তু শান্তিপাইব না তো ! মহাপুরুষের কথা কখনই মিথ্যা হয় না। অসদুপায়ে অর্জিত অর্থে সুখ-শান্তি তো কখনই মিলিবে না ! আমি এ কি করিতেছি!—আমি এ কোন পথে অগ্রসর হইয়াছি? রাজা দেবত ; আমি সেই রাজার বিরুদ্ধে, তুচ্ছ অর্থের