পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৩০৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


\5o 8 লক্ষণ-সেন । আকাঙ্ক্ষায়, ঘোর ষড়যন্ত্র-জালে লিপ্ত হইয়াছি। আমার এ পাপের প্রায়শ্চিত্ত আছে কি ?” প্রায়শ্চিত্তের কথা মনে উদয় হইবা মাত্র ত্রিলোচনের চিন্তার গতি একবার পরিবর্তিত হইল। ত্রিলোচন মনে মনে কহিলেন,—“আমি অত্যাচার-প্রপীড়িত। অত্যাচারের প্রতিশোধ-গ্রহণ কি কৰ্ত্তব্য নহে!” কিন্তু ত্রিলোচনের অন্তরাত্মাই তাহার উত্তর দিল,—“তুমি অপরাধ করিয়াছিলে। দণ্ডধর নৃপতি তোমার অপরাধের দণ্ডবিধাম করিয়াছিলেন । ইহাতে র্তাহার প্রতি অত্যাচারের আরোপ কর কি প্রকারে ? যেমন কৰ্ম্ম, তাহার তেমনই ফল কি প্রত্যাশা কর না ? মুক্তি পাওয়ার পর হইতে যে অপকৰ্ম্ম • করিয়া বেড়াইতেছ, তাহারও কি প্রতিফল পাইবে না !” ত্রিলোচন সন্ত্রস্ত হইয়। কহিলেন,— “মুক্তির পর আমি এমন কি অপরাধ করিয়াছি! আমি নিরাশ্রয় ছিলাম, একজনের আশ্রয় লইয়াছিলাম মাত্র।” এই উত্তর দিবামাত্র ত্রিলোচনের মনে হইল,—“তাহ হইলেও কাজটা ভাল হয় নাই! অজ্ঞাত অপরিচিত ব্যক্তির বজরায় আশ্রয় লওয়াই প্রথমে আমার ভুল হইয়াছিল। তার পর আমি যখন জানিতে পারিলাম,—বজরার আরোহীর দেশের শক্র, রাজার শক্র ; তখনই আমার সতর্ক হওয়া কৰ্ত্তব্য ছিল। আমি কেনই বা তাহাদের সঙ্গ লইলাম ? তাহারা কখনই তো আমাকে ধরিয়া রাধিতে পারিত না । ধরিয়া রাখিবার চেষ্টা করিলেও আমি জলে ঝম্প-প্রদান করিতে পারিতাম ! তাহাতে যদি প্রাণ যাইত, সেও শ্ৰেয়ঃ ছিল। তাহা হইলে বক্তিয়ার সাহকে নবদ্বীপ-রাজ্যের নিগূঢ় সন্ধান দিতে হইত না ; আর