পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৩১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অপরাধ । ९१ সঙ্গী।–ঞ্জতনি রাজকারাগারেই আবদ্ধ আছেন। উৎসবের এ তিন দিন তাহার সম্বন্ধে বিশেষ কোনরূপ তদ্বির হওয়ার সম্ভাবনা নাই। একজন র"চারীর সহিত সাক্ষাৎ করিয়া দুই একট। পরামর্শ করিব, ইহাই, অভিপ্রায় । তবে অপরাধ গুরুতর।" . ব্রাহ্মণ।–“শুনেছি, পথেস্থিাতে রাজস্কের টাকাগুলা লুট করে নিয়েছে। সে বেচারার দোষ কি?” : , সঙ্গী।–“সে কথা মিথ্যা কথা। ত্রিলোচন ঐ বলিয়া কতকগুলি নিরীহ লোকের হাতে দড়ি দেওয়াইয়াছে।" ব্রাহ্মণ। —“সঙ্গের পাইক চারি জন ও নৌকার মাঝিগণ দস্তাদের সঙ্গে ষড়ধ করিয়াছিল বলিয়া শুনিয়াছি। সে কথা fক তপে সত্য নয় ?” সঙ্গী —“তাহারা বাধা পড়িয়ছে বটে ; কিন্তু বেচারারা নির্দোষ।” ব্রাহ্মণ —“আপনি কি করিয়া জানিলেন ?" সঙ্গী।–“ত্রিলোচনকে বচাইবার জন্য আমি যে তদ্বির করিতেছি, তাহতেই সমস্ত ব্যাপার জানিতে পারিয়াছি। সন্ধ্যার সময় ত্ৰিলোচনের নৌকা যখন ঘাটে আসিয়া উপস্থিত হয়, একটা পাগল সেই ঘাটে বসিয়া পাগলামি করিতেছিল। ত্রিলোচন তাহাকে মহাপুরুষ বলিয়া মনে করে । ত্ৰিলোচনের লোভের বিষয় তো আপনার অবিদিত নাই! যতই অর্থ সঞ্চিত হইতেছে, , ততই তাহার সঞ্চয়ের তৃষা বাড়িয়া আসিতেছে। ঘাটের সেই পাগলটাকে মহাপুরুষ মনে করিয়া, ত্ৰিলোচন তাহার চরণে টাকার থলি সমৰ্পণ করে। পাগল-টাকার মৰ্ম্ম কি বুঝিবে ?