পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৪৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দরবার। 86. উৎসবে মিথিলার সাহিত্য-সেবী পণ্ডিতগণ নিমন্ত্রিত হইয়াছিলেন । কিন্তু রাজা জয়সিংহের আদেশে তাহারা সে নিমন্ত্রণ উপেক্ষা করিতে বাধ্য হইয়াছেন। অধিক বলিব কি, মিথিল হইতে পণ্ডিত শ্রীধর মিশ্র নিমন্ত্রণ রক্ষা করিতে আসিয়াছেন বলিয়া, রাজা জয়সিংহ তাহার বাড়ীঘর পুড়াইয়া দিয়াছেন এবং তাহার স্ত্রী-পুত্রকে বন্দী করিয়া রাখিয়াছেন। পণ্ডিত শ্ৰীধর মিশ্র এই দরবারেই উপস্থিত আছেন। তাহার আত্মীয় গোপীনন্দন সেই দুঃসংবাদ লইয়া আসিয়াছেন।” সংক্ষেপে জয়সিংহের দুৰ্ব্ব্যবহারের বিষয় আলোচনা করিয়া রঘুদেব উত্তেজিত কণ্ঠে কহিলেন,—“নবদ্বীপধিপতির এই অপমান আমাদিগের জীবন থাকিতে আমরা সহ্য করিব কি ? : যে মিথিলা জয় করিতে গিয়া মিথিলায় নবদ্বীপাধিপতির বিজয়পতাকা উড্ডীন করিয়া, পরিশেষে বিশ্বাসঘাতকের অস্ত্রে স্বৰ্গীয় মহারাজ প্রাণদান করিতে বাধ্য হইয়াছিলেন ; আর পিতৃপ্রাণের বিনিময়ে যে রাজ্য রাজচক্ৰবৰ্ত্তী মহারাজ লক্ষ্মণসেনের অধিকার-ভুক্ত হইয়া আসিয়াছিল; সেই রাজ্যের সামান্ত একজন অধীন রাজার নিকট এ দুৰ্ব্ব্যবহার—এ অবমাননা কখনও কি সহৃ করা যায় ? ধৰ্ম্মরক্ষার জন্য প্রাণদান হিন্দুর পক্ষে তুচ্ছ কথা। যদি মিথিলার আধিপত্য বিলুপ্ত হয়, এ রাজ্যের কোনও হিন্দু প্রজা শ্ৰীশ্ৰীyকাশীধামে বিশ্বেশ্বরের সন্নিধানে গমন করিতে যদি এইরূপভাবে বাধা প্রাপ্ত হয়, তাহা হইলে হিন্দুর ধৰ্ম্মকৰ্ম্ম সকলই লোপ পাইতে চলিল-বলিতে হইবে । ধর্ম-রক্ষার-বিধি-রক্ষার উপায়-বিধান করিতে হইলে, আত্মসম্মান অক্ষুন্ন রাধিতে হইলে, আমাদের কি করা কৰ্ত্তব্য ?”