পাতা:লক্ষণ সেন - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৫৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


(? o লক্ষণ-সেন আট ক্রোশের মধ্যে আদেী জনপদাদি দৃষ্ট হয় না। বহু নিবিড় জঙ্গল, বহু অনুৰ্ব্বর উষর ক্ষেত্র, বহু উচ্চ-নীচ বন্ধুত্ব পাৰ্ব্বত্য পথ অতিক্রম করিয়া এই চটিতে পৌছিতে হয়। পথের কোথাও দিবাভাগেই ব্যাঘ্র-ভয়কের দর্শন-লান্ত ঘটে, কোথাও বন্যহস্তীর বিভীষিকায় প্রাণ চমকিয় উঠে, কোথাও দমু্য-তস্করের আতঙ্কে হৃদয় অবসন্ন হয়। এই প্রকার নানা-বিভীষিকাময় আট ক্রোশ পথ অতিক্রম করিলে ‘গড়ের চটিতে উপনীত হওয়া যায়। অতি প্রত্যুষে রওনা হইয়া, সারা দিন পথ চলিয়া, সন্ধ্যার প্রাক্কালে যাত্ৰিগণ গড়ের চটিতে উপনীত হন । ‘গড়ের চটির’ শুধুই নামডাক সার ৷ আশ্রয়ের উপযোগী কুটিরাদি এই চটতে অতি অল্পই ছিল। প্রকাণ্ড পীচ সাতট অশ্বথ-বট বৃক্ষ, আর তাহারই পাশ্বে পােচ সাত খানি ক্ষুদ্র চালাঘর ;–ইহা লইয়াই গড়ের চটি। চটির সেই চালাঘরগুলির—কতক খড়ে ছাওয়া, কতক বা তালপত্রে ছাওয়া। চারিপাঁচখানি ঘরে সামান্ত একটু একটু মুদিখান দোকান ছিল। স্বাত্রীদের আবখ্যকমত চাল, ডাল, লঙ্কা, লবণ, তৈল প্রভূক্তি সেই দোকানে পাওয়া যাইত। দোকামীর সারদিনই প্রায় বসিয়া বসিয়া কাটাইত। সন্ধ্যার সময় যখন যাত্রীরা আসিয়া পেীছত, তখন দোকানগুলি সরগরম হইয়া উঠিত। চালাঘরগুলিতে যাত্রীদের প্রায়ই স্থান কুলাইত না । দুই এক জন যাত্রী বেশী ভাড়া দিতে স্বীকার করিয়া চালাঘরে আশ্রয় লইতেন বটে ; কিন্তু অধিকাংশ যাত্রীকেই বৃক্ষমূলে রাত্রি কার্টাইতে হইত।