প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (অষ্টম সম্ভার).djvu/১০৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ কিন্তু হারাণ কি দিতে পারবে ? তার অবস্থা তো এখন ভাল নয়। না, অবস্থা ভাল নয়। তাই বুঝে আপনি যা আদেশ করবেন তাই দেবেন। বুদ্ধ একটু মুস্কিলে পড়িলেন । মনে মনে ভাবিলেন, উপরোক্ত কথাটা না বলিলেই ভাল করিতেন । কিন্তু বিষয়-বুদ্ধিশালী হরমোহন তাহ সহজেই শোধরাইয়া লইয়া বলিলেন, তা কি জান বাপু, মেয়ের বিবাহের কিছু খরচ আছেই। অবগু | তখন হরমোহন অভ্যাসমত অধরের ক্ষীণহাসিটুকু বিদায় দিয়া পাথরের মানুষটি সাজিয়া বলিলেন, এক সহস্ৰ নগদ মুদ্রার কম সারদার বিবাহ আমি কিছুতেই দিতে পারি না । সদানন্দ সহস্তে বলিল, তাই হবে। সদানন্দর কথা শুনিয়া বৃদ্ধ ত নিজের উপরই চটিয়া গেলেন। আপনাকে একটি অতিশয় বৃহদাকার গর্দভ বলিয়া মনে মনে সম্বোধন করিলেন ; কেন দেড় সহস্রের কথা কহিলেন না, এ আপলোস র্তাহার হৃদয় ফাটিয়৷ বাহির হইতে লাগিল। যখন কথা বাহির হইয়া গিয়াছে তখন আর ফিরাইতে পারা যায় না ; যাহা হোঁক, মন্দের যতটা ভাল হইতে পাবে এই উদ্দেশ্যে বলিলেন, অবশু মেয়েকে গহনা দিতেই হবে । হবেই। দান-সামগ্রী রীতিমত অাছেই । श्रां८छ्झे । তবে আমার ও আম ত নাই । তবে একটা দিন স্থির করে ফেলুন। বৃদ্ধ একটু টোক গিলিয়া বলিলেন, অবগু এ বিবাহ আপনা-আপনির মধ্যেই, আর হারাণও কিছু আমাদের পর নয়, তবুও নিয়মগুলা সব পালন করে চলতে হবে । সদানন্দ একটু শঙ্কিত হইয়া বলিল, নিয়ম আবার কি ? নিয়ম এখন কিছুই নয়, তবে লেখাপড় একটা প্রয়োজন । বেশ তাই হোক । কিন্তু কার সঙ্গে হবে ? আমারই সঙ্গে হোক । কবে ? সদানন্দ একটু ভাবিয়া-বলিল, একমাস পরে। বৃদ্ধ সম্মত হইলেন । তখন সদানন্দ বলিল, আমার একটি অনুরোধ আছে।

  • 8