প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (অষ্টম সম্ভার).djvu/১২২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ মালতী একটু মৌন থাকিয়া কহিল, পূর্বেই বলেচি, আমি বেঙ্গ-বেঙ্গয় সব পারে । উঃ—সে কি সদানন্দ ? न-व्रांद्र ७धकछन । s” তবে তুমি মানুষ চিনতে পার নাই—তাকে বল নাই কেন ? সে তোমাকে ভালবাসত | সহসা মালতীর সর্বাঙ্গে তড়িৎপ্রবাহ ছুটিয়া গেল। সেই পাগলা ক্ষ্যাপা মূখখান ! মালতীর মনে পড়িল, সেই বৃষ্টির দিন ; সে সন্ধ্যার সময় ঘাট হইতে জল জানিতেছিল, পথিমধ্যে বৃষ্টি আসিয়া পড়িল, ভিজিয়া জর হইবার ভয়ে সদানন্দর বাটীতে আশ্রয় গ্রহণ করিল। মনে পড়িল, সেই প্রথম তাহার নিকট অর্থ-সাহায্য পাওয়া ; তাহার পর নিত্য হাতে গুজিয়া দেওয়া ; সেই কাশী যাইবার দিন ; সেই বালিশের নীচে একরাশ টাকা দেওয়া ; সেই আরো কত কি ! মনে পড়িল, দুঃখের সময় সেই সহানুভূতি। নিমিষে তাহার চক্ষুদ্ধৰ্ব জলে ভরিয়া গেল, কিন্তু বাহিয়া পড়িবার পূৰ্ব্বে মালতী তাহা মুছিয়া ফেলিল। স্বরেন্দ্রনাথ কিন্তু তাহ দেখিতে পাইলেন না । তিনি কোঁচের বাহুতে হেলান দিয়া চক্ষু মুছিয়া অন্য অনেক কথা ভাবিতেছিলেন, বলিলেন, তার পর ? কলিকাতায় যাচ্ছিলাম । তার পর ? দয়া করে পায়ে স্থান দিয়েচ । পূৰ্ব্বোক্ত প্রশ্ন তিনি অন্যমনস্ক হইয়া করিয়াছিলেন, উত্তর শুনিয়া তাহা বুঝিলেন। উঠিয়া বসিয়া বলিলেন, মালতী, তুমি রত্ন । রত্ন কুস্থানে পেলেও গলায় পরতে হয়। কে বললে ? যে রত্ন একজন গলায় পরে, অন্ত হয়ত তা পায়ে রাখতেও ঘূণা বোধ করে । তুমি আমাকে চরণে স্থান দিও—আমি রত্ন, তাতেই পরম সৌভাগ্য মনে করব । স্বরেন্দ্রনাথ অল্প হাসিলেন ; বলিলেন, মালতী, আমি ভাবতাম তুমি বোকা, কিন্তু তা তুমি নও— ཟླ། ལཱ་ཀ་ཨེ་ অল্প হাসিল । দুঃখে কষ্টে আজ তাহার অধরে প্রথম হাসির রেখা দেখা i এই সময়ে বাহির হইতে দ্বাণী বলিল, বাবু, অঘোরবাবুর জুড়ি বাহিরে দাড়িয়ে अर्छि । স্বরেন্দ্রনাথ-বিস্থিত হইলেন ; অঘোরবাবু ? কিন্তু এ বাগানবাড়িতে কেন ? তিনি বলে পাঠিয়েচেন বড় দরকার। স্বরেন্দ্রনাথ তাড়াতাড়ি উঠিয়া বলিলেন, মালতী, এখন তবে আসি । $ $ R