প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (অষ্টম সম্ভার).djvu/২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরং-সাহিত্য-সংগ্ৰহ ভগবানবাবু আবার বলিলেন, আমি ভেবেছিলাম রাত্রে স্ত্রীলোকের প্রয়োজন বিনোদের নিকট থাকতে পারে ; এত রাত্রে আমার নিকট যে তোমার কি প্রয়োজন আছে আমি বুঝে উঠতে পারছি না। তথাপি শুভদা কোনও উত্তর দিল না । তোমার বাড়ি কোথায় ? হলুদপুরে। হলুদপুরে ? আমার নিকট প্রয়োজন ? তুমি কি হারাণের স্ত্রী ? শুভদা অবগুণ্ঠনের ভিতর হইতে ঘাড় নাড়িয়া বলিল, ই । তবে বল কি প্রয়োজন ? শুভদা অঞ্চল হইতে বালা দু'গাছি খুলিয়া ধীরে ধীরে ভগবানবাবুর পায়ের নিকট রাখিয়া গদগদ কণ্ঠে বলিল, তাকে ছেড়ে দিন । বৃদ্ধ সমস্ত বুঝিতে পারিলেন। বালা দু'গাছি হাতে লইয়া বেশ পরীক্ষা করিয়া অবশেষে কহিলেন, তবুও স্বর্থী হলাম যে সে তোমাকে এটাও দিয়েছিল। তাহার পর বালা দুটি নীচে রাখিয়া বলিলেন, তুমি এটা ফিরিয়ে নিয়ে যাও । আমি ব্রাহ্মণের মেয়ের হাতের বালা নিতে চাই না । ছেড়ে দিতে হয় আমনই দেব ; বিশেষ সে আমার যা নিয়েছে তাতে এ অলঙ্কার নিয়ে ছেড়ে দেওয়াও যা, না নিয়ে ছেড়ে দেওয়াও তা । শুভদা চক্ষু মুছিয়া বলিল, তাকে ছেড়ে দেবেন ত? ইচ্ছা ছিল না ! সে যে-রকম দুশ্চরিত্র তাতে তার শাস্তি পাওয়াই উচিত ছিল, তবুও তোমার জন্য ছেড়ে দেব । শুভদার চক্ষু ফাটিয়া জল পড়িতে লাগিল । পলিতকেশ বুদ্ধকে সে ব্রাহ্মণকন্যা হইলেও মুখ ফুটিয়া আশীৰ্ব্বাদ করিতে সাহস করিল না ; মনে মনে তাহাকে শত ধন্যবাদ দিয়া ঈশ্বরের চরণে র্তাহার সহস্র মঙ্গল কামনা করিয়া যাইবার জন্য উঠিয়া দাড়াইল । ভগবানবাবু মুখ তুলিয়া বলিলেন, আজই বাড়ি যাবে? শুভদ ঘাড় নাড়য়া জানাইল, আজই যাইবে । তোমার সঙ্গে আর কেউ লোক আছে ? কেউ না । কেউ না ? তবে এত রাত্রে একা যেও না । একজন লোক সঙ্গে নিয়ে যাও । শুভদা তাহাও অস্বীকার করিয়া একাকী সেই বনের ভিতর দিয়া বাটী ফিরিল। যখন বাটতে প্রবেশ করিল তখন ভোর হইয়াছে ৷ ললনা ইতিপূৰ্ব্বে উঠিয়া সংসারের কাজ-কৰ্ম্ম করিবার চেষ্টা করিতেছিল। পিক্তবস্ত্রে জননীকে দেখিয়া কহিল, মা, এত ভোরে স্নান করে এলে ? हैं । N Ro