প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (অষ্টম সম্ভার).djvu/২৬৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মেজদিদি হেমাদিনী কতক্ষণ কাঠের মত বসিয়া খাৰিয়া ওইয়া পড়িয়া বলিলেন, কেন তুই পুতুল-নাচ দেখতে গেলিনি কেষ্ট ? গেলে ত এইসব হ’ত না । আসতে যখন তোকে ওরা দেয় না ভাই, তখন জায় আসিসনে আমার কাছে। কেষ্ট জার কথাটি না কহিয়া জান্তে জান্তে চলিয়া গেল। তৎক্ষণাৎ ফিরিয়া আঁসিয়া বলিল, আমাদের গায়ের বিশালাক্ষী ঠাকুর বড় জাগ্রত মেজদি, পূজো দিলে অস্থখ সেরে যায়। দাও না মেজদি ! এইমাত্র নিরর্থক ঝগড়া হইয়া যাওযায় হেমাঙ্গিনীয় মনটা ভারি বিগড়াইয়া গিয়াछ्लि, संग्रंफ-बैंछि ७ श्ब्रहै-८नहेछछ नग्न । ७शन ७ककै ब्रगांज हूठ नोहेब्रां ७lहे হতভাগায় দুর্দশ যে কিরূপ হইবে, আসলে সেই কথাটা মনে মনে তোলপাড় করিয়া র্তাহার বুকের ভিতরটা ক্ষোভে ও নিরুপায় আক্ৰোশে জলিয়া উঠিয়াছিল। কেই ফিরিয়া আসিতেই হেমাঙ্গিনী উঠিয়া বসিলেন, এবং কাছে বসাইয়া গায়ে হাত বুলাইয়া দিয়া কাদিয়া ফেলিলেন। চোখ মুছিয়া বলিলেন, আমি ভাল হয়ে তোকে লুকিয়ে পূজো দিতে পাঠিয়ে দেব। পারবি একলা যেতে ? af কেট উৎসাহে দুই চক্ষু বিফারিত কবিয়া বলিল, একলা যেতে খুব পারব। তুমি জাজকে আমাকে একটা টাকা দিয়ে পাঠিয়ে দাও না, মেজদি—আমি কাল সকালেই পূজো দিয়ে তোমাকে প্রসাদ এনে দেব। সে খেলে তক্ষুনি অস্থখ সেরে যাবে। দাও না মেজদি আজকেই পাঠিয়ে । হেমাঙ্গিনী দেখিলেন, তাহার আর সবুর সয় না ! বলিলেন, কিন্তু কাল ফিরে এলে তোকে যে এরা তারি মারবে । মার-ধোয়ের কথা শুনিয়া প্রথমটা কেষ্ট দমিয়া গেল, কিন্তু পরক্ষণেই প্রফুল্ল হইয়া কহিল, মারুক গে। তোমার অস্থখ সেরে যাবে ত । আবার তাহার চোখ দিয়া জল গড়াইয়া পড়িল । বলিলেন, হ্যা রে কেষ্ট, আমি তোর কেউ নই, তবে আমার জন্যে এত মাথা-ব্যথা কেন ? এ-প্রশ্নের উত্তর কেষ্ট কোথায় পাইবে ? সে কি কবিয়া বুঝাইবে, তাহার পীড়িত আৰ্ত্ত হৃদয় দিবারার কাদিয়া কাদিয়া তাহার মাকে খুজিয়া ফিরিতেছে! একটুখানি মুখপানে চাহিয়া থাকিয়া বলিল, তোমার অস্থখ যে সারচে না মেজদি-বুকে সর্দি বসেচে ষে ] , হেমাঙ্গিনী এবার একটুখানি হাসিয়া বলিলেন, আমার বুকে সর্দি বলেছে তাতে তোর কি ? তোর এত ভাবনা হয় কেন ? কেষ্ট আশ্চর্ঘ্য হইয়া বলিল, ভাবনা হবে না মেজদি, বুকে সর্গি বসা যে বড় খারাপ। অস্থখ যদি বেড়ে যায় তা হলে ? তা হলে তোকে ডেকে পাঠাব। কিন্তু না ডেকে পাঠালে আর জাগিগনে ভাই । ፳¢ጀመ