প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (অষ্টম সম্ভার).djvu/৩৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


*द्र६-नाँहिंडj-न६4jई আজ অপরাহ্লে আকাশে ভারি মেঘ করিয়াছে। সমস্ত নিশ্চল, নিস্তব্ধ। প্রকৃতি এমন ভাব ধরিয়া আছে যেন ইচ্ছা করিলে এখনই প্রবলধারে জল ঢালিতে পারে এবং ইচ্ছা না করিলে হয়ত এখনও তিন-চার ঘণ্টা স্থগিত রাখিতে পারে। পিসি রাসমণি ডাকিয়া বলিলেন, ও ললনা, ঘরে যে এক ফোটা খাবার জল নেই। চট করে ঘাট থেকে এক কলসী জল নিয়ে আয় না মা । ললনা কলসী কাকালে গঙ্গার ঘাটে আসিল । জল লইয়া দুই পদ অগ্রসর হইতে না হইতেই মেঘ হইতে বড় বড় ফোট জল পড়িতে লাগিল ৷ ললনা হন হন করিয়া পথ বাহিয়া চলিতে লাগিল । আসিবার পথেই সদানন্দর বাটী, পথের ধারের আটচালাঘরের বারান্দায় বসিয়া সে তখন রামপ্রসাণী স্বরে কালীনাম গাহিতেছিল। ললনাকে দেখিয়া গান থামাইয়া বলিল, ললনা চিজচ কেন ? ললনা ঈষৎ হাসিয়া বলিল, তুমি গান থামালে কেন ? সদানন্দও হাসিল; হাসুি-গান তাহার মুখে অষ্টপ্রহর লাগিয়াই আছে। স্বর করিয়া বলিল, গান থামিয়া গেছে, তাহার পর স্বাভাবিক স্বরে কহিল, সে-কথা যাক মিছামিছি ভিজো না, এইখানে একটু দাড়াও । ললনা বারান্দায় আসিয়া দাড়াইল । সদানন্দ তাহার মুখপানে কিছুক্ষণ চাহিয়া বলিল, দাড়িও না, বাড়ি যাও । সে কি ? পিসিমা বাড়ি নাই, বেশ জল এলে যাবে কেমন করে ? ললন ভাবিল, সে-কথাও বটে; দুই পদ অগ্রসর হইল, কিন্তু আবার পিছাইয়া আসিল । সদানন্দ বলিল, ফিরলে কেন ? কাল রাত্রে আমার জর হয়েছিল, জলে ভিজলে অমুখ বাড়তে পারে। তবে যেও না, এইখানে দাড়িয়ে থাক । সদানন্দ তখন আপন-মনে গান ধরিল কন্তু তারে পাব না বুঝি, মিছে হাত বাড়ায়ে দাড়ায়ে আছি । কত জালায় জলে মরি, তুই কি জানবি পাষাণী মা । আমার সোনার তরি ডুববে এবার— ললন। কলসী নামাইয়া গান শুনিতেছিল ; মিষ্ট গলায় মিষ্ট গান তাহার বড় ভাল লাগিতেছিল। হঠাৎ মাঝপথে থামিয়া যাওয়ায় বলিল, একি থামলে যে ? আর গা’ব না ! কেন ? “ আর মনে নাই । १४