প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (অষ্টম সম্ভার).djvu/৩৯৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্রই একটা দৃষ্টান্ত দিই। কিছুদিন পূৰ্ব্বে হরিজননের প্রতি অবিচারে ব্যৰিত হয়ে তিনি প্রবর্তক-সক্সের মতিবাৰকে একখানা চিঠি লিখেছিলেন। তাতে অনুৰোগ করেছিলেন ষে ব্রাহ্মণীর পোষা বিড়ালটা এটো-মূখে গিয়ে তার কোলে বসে, তাতে গুচিত নষ্ট হয় না-তিনি আপত্তি করেন না । খুব সম্ভব করেন না, কিন্তু তাতে হরিজনদের স্ববিধা হ’ল কি ? প্রমাণ করলে কি ? বিড়ালের যুক্তিতে এ-কথা ত ৰান্ধীকে বলা চলে না ষে, ষ্ণে-হেতু অতি নিকৃষ্ট জীব বেড়ালটা গিয়ে তোমার কোলে বলেচে, তুমি আপত্তি করোনি, অতএব অতি-উৎকৃষ্ট জীব আমিও গিয়ে তোমার কোলে বলৰ, তুমি আপত্তি করতে পারবে না। বেড়াল কেন কোলে বলে, পি পড়ে কেন পাতে ওঠে, এ-সব তর্ক তুলে মানুষের সঙ্গে মানুষের স্তায়-অন্যায়ের বিচার হয় না। এ সব উপমা শুনতে ভাল, দেখতেও চক্চক্ করে, কিন্তু যাচাই করলে দাম ৰা ধরা পড়ে তা অকিঞ্চিৎকর। বিরাট ফ্যাক্টরীর প্রভূত বস্তু-পিও উৎপাদনের অপকারিত দেখিয়ে মোট নভেলও অত্যন্ত ক্ষতিকর, এ কথা প্রতিপন্ন হয় না । আধুনিককালের কল-কারখানাকে নানা কারণে অনেকেই আজকাল নিজে क८ब्रन, ब्रवैौवनांषe क८ब्रद्दध्न-ठां८७ cशांश cबहे। बद्रक ७ट्रेtछेहे इटबद्दछ कTांनन । এই বন্ধ-নিন্দিত বস্তটার সংস্পর্শে ষে মাছুযগুলো ইচ্ছেন্ন বা অনিচ্ছেন্ন এসে পড়েচে, তাদের মুখ-দুঃখের কারণগুলোও হয়ে দাড়িয়েচে জটিল—জীবন-যাত্রার প্রণালীও গেছে বদলে, গায়ের চাবাদের সঙ্গে তাদের হুবহু মেলে না। এ নিয়ে আপশোস করা যেতে পারে, কিন্তু তত্ত্ব যদি কেউ এদেরই নানা বিচিত্র ঘটনা নিয়ে গল্প লেখে, তা সাহিত্য হবে না কেন ? কৰিও বলেন না ৰে হবে না। তার আপত্তি গুৰু সাহিত্যের बांबी शब्षरन । किरू ७३ यांबी हिद्र एट्व कि श्रिब ? कलइ शि८ब्र, बां कहूँकषां দিয়ে ? কৰি বলেচেন-স্থির হবে সাহিত্যের চিরন্তন মূল নীতি দিয়ে। কিন্তু এই ‘মূল নীতি' লেখকের বৃদ্ধির অভিজ্ঞতা ও স্বকীয় রসোপলব্ধির আদর্শ ছাড়া আর কোথাও আছে কি ? চিরন্ডনের দোহাই পাড়া ষার শুধু গায়ের জোরে, আর কিছুতেই ब्रज्ञ ॥ ७छे भर्ब्रौछिक । কৰি বলেচেন, "উপন্যাস-সাহিত্যেরও সেই দশা। মামুষের প্রাণের রূপ চিত্তার ভূপে চাপা পড়েচে।” কিন্তু প্রত্যুত্তরে কেউ যদি বলে, “উপন্যাস-সাহিত্যের সে দশা নয়, মাহুষের প্রাণের রূপ চিন্তার স্থূপে চাপ পড়েনি, চিন্তার স্বৰ্য্যালোকে উজ্জল হয়ে উঠেছে, “তাকে নিরস্ত করা যাবে কোন নজীর দিয়ে ” এবং এরই সঙ্গে আর একটা বুলি আজকাল প্রায়ই শোনা যায়, তাতে রবীক্সনাৰও ৰোগান দিয়েচেন এই বলে BSDD DDD DDD BBB BBS BB BB DDD DDD DDS DD DDD ৰাকে।” বচনটি স্বীকার করে নিয়েও পাঠকেরা যদি বলে—ই, আমরা প্রকৃতিস্থই আছি, কিন্তু দিন-কাল বলেচে এবং বলেও বেড়েচে, সুতরাং রাজপুত্র ও ব্যাজমী