প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (অষ্টম সম্ভার).djvu/৫৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শুভদ জানয়ন করিয়াছে। তাই পূৰ্ব্বের কথা পুনরায় একটির পর একটি করিয়া তাহার মস্তিষ্কে উদয় হইতে লাগিল। কেহ বলে, বালা-প্রেমে অভিসম্পাত আছে ; কেহ বলে, বাল্য-প্রেম দৃঢ় হয় না ; কেহ বলে, দৃঢ় হয় । যাহাই হৌক এ-বিষয়ে ঠিকঠাক একটা কোনরূপ বন্দোবস্ত করা নাই । সকল রকমই হইতে পারে ; কিন্তু যাহাই হোক, ইহার একটা স্থতি চিরদিনের জন্য ভিতরে রহিয়া যায়। যেমন করিয়া উপড়াইয়া ফেলিয়া দেওয়া হোঁক না কেন, একটু ক্ষুদ্রতম শিকড় বোধ হয় অনুসন্ধান করিলে অনেক হাত জমির তলে পাওয়া যায়। সারদাচরণের অনেক কথা মনে হইতে লাগিল। আজ চারি বৎসর পরে সে আবার আসিবে, কাছে বসিবে, কথা কহিবে । সারদার ভিতরটা যেন একটু শিহরিয়া উঠিল, আনন্দে যেন অল্প রোমাঞ্চ হইল। কিন্তু কেন ? কেন আসিবে ? কেন আমাকে এ-সময়ে এ-স্থানে আসিতে অনুরোধ করিল ? আর কি সম্বন্ধ अरझ ? 攀 রাত্রি প্রায় একটা বাজে । একজন স্ত্রীলোক অবগুণ্ঠনে মুখ ঢাকিয়া সেই পথে আসিতে লাগিল । সারদাচরণ ভাবিল, একি ললনা ? ললনাই ত বটে ! কিন্তু বড় হইয়াছে । ললনা আসিয়া নিকটে দাড়াইল । সারদাচরণ সঙ্কোচ ছাড়িয়া বলিল, ব’স । তখন বহুদিনের পর দুইজনে মুখোমুখি হইয়া চাদের আলোকে ভগ্ন মন্দিরে সেই চাতালের উপর উপবেশন করিল। বহুক্ষণ অবধি কেহ কথা কহিতে পারিল না ! তাহার পর সারদাচরণ সাহস করিয়া বলিয়া ফেলিল, আমাকে এখানে ডেকে আনলে কেন ? ললন মুখ তুলিয়া বলিল, আমার প্রয়োজন আছে। কি প্রয়োজন ? বলছি । পুনরায় বহুক্ষণ নিস্তন্ধে অতিবাহিত হইলে সারদাচরণ বলিল, কই বললে না ? বলছি। পূৰ্ব্বে তুমি আমাকে ভালবাসতে, এখন আর বাস কি ? প্রশ্নের ভাবে সারদাচরণ বড় বিস্মিত হইল। কহিল, সে কথা কেন ? কাজ আছে । যদি বলি এখনও ভালবালি ? ললন। মৃদু হাসিয়া সলজে বলিল, আমাকে বিবাহ করবে ? সারদাচরণ একটু পিছাইয়া বসিল। বলিল, না । কেন করবে না ? তোমাকে বিবাহ করলে জাত যাবে। ෆූVථා