প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (অষ্টম সম্ভার).djvu/৯০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ কেন না, যতই প্রয়োজনীয় এবং কর্তব্য হউক না, আশ্রয় ত্যাগ করিয়া নিরাশ্রয়ে যাইতে মনকে তেমন সহজে রাজি করিতে পারা যায় না, ইতিপূর্বেই দে এই মর্শ্বে তাহার সহিত কলহ করিতেছিল – এখন যেন নিশ্বাস ফেলিয়া সেটাকে বুঝাইয়া স্বঝাইয়া চলনসই গোছ এরকম করিয়া লইবার মত সময় পাইল । g পরদিন মধ্যাহ্নে জয়াবতী কলিকাতা ভ্রমণ করিতে যাইবে স্থির হইয়াছিল। গাড়ি, পানী ঠিক করিয়া ভৃত্য সংবাদ দিল ; জয়াবতী বাবুকে তাহার সহিত যাক্টতে অনেক সাধ্যসাধনা করিল, কিন্তু তিনি কিছুতেই সন্মত হইলেন না ; মালতী যাইতে চাহিয়াছিল, কিন্তু বাৰু নিষেধ করিয়া পাঠাইলেন —তাহার শরীর ভাল নয়, আবার জর হইতে পারে । তখন মগত্য জয়াবতী একাই দাসী ভূত্য সঙ্গে লইয়া বেড়াইতে গেল । মালতী কামরার ভিতর শয়ন করিয়াছিল, স্বরেন্দ্রবাবু দ্বার ঠেলিয়া ভিতরে প্রবেশ করিলেন। মালতী সঙ্কুচিত হইয়া উঠিয়া বসিল, স্বরেন্দ্রবাবু একটু দূরে উপবেশন করিলেন -অনেকক্ষণ এইভাবে অতিবাহিত হইল। তিনি কিছু বলিবেন মনে করিয়া আসিয়াছিলেন, কিন্তু বলিতে সাহস হুইতেছিল না—অনেকক্ষণ পরে একটু থামিয়া একটু ভাবিয়া বলিলেন, তুমি এইখানেই কি নিশ্চয় নেমে যাবে ? মাথা নাড়িয়া মালতী বলিল, ই ৷ বেশ করে চিন্তা করে দেখেচ কি ? মালতী সেইরূপভাবে বলিল, দেখেচি । কোথায় যাবে ? তা ত জানি না । স্বরেন্দ্রবাবু হাসিয়া উঠিলেন ; বলিলেন, তবে আর কি দেখেচ ? আজ নয়, কাল একবার কলকাতার ভিতরটা দেখে এস ; তার পর যদি নিশ্চিত ত্যাগ করে অনিশ্চিতই ভাল লাগে—যেও, আমি বরণ করব না । মালতী কথা কহিল না ! তিনি কিছুক্ষণ মৌন থাকিয়া পুনরায় পূৰ্ব্বাপেক্ষ মানভাবে কহিতে লাগিলেন, তুমি যতটা না ভেবেচ, আমি ততটা ভেবে দেখেচি। তুমি ব্রাহ্মণকস্তা—হীনবৃত্তি অবলম্বন করতে পারবে না ; ভদ্রলোকের কন্যা ভদ্র সংসারে প্রবেশ করতে না পারলে তুমি থাকতে পারবে না ; এ অবস্থায় নিঃসহায় অবস্থায় কেমন করে যে এত বড় সহরে সমস্ত অনুসন্ধান করে নিতে পারবে, আমি বুঝতে পারি না। কিছুক্ষণ থামিয়া আবার কহিলেন, আর ভেবে দেখ, তোমার এ-বয়সে মান-সন্ত্রম বজায় রেখে আপনাকে বেশ সামলিয়ে চলতে পারবে কি ? ভয় হয় পাছে পদে পদে বিপদে পড়। মালতী নিঃশবে কাপিতেছিল, এসকল সে সমস্তই ভাবিয়া দেখিয়াছিল, কিন্তু bre