প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (একাদশ সম্ভার).djvu/১৩৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চরিত্রহীন হাঙ্গামা কোথায় টানিয়া আনিবে, এই দুর্ভাবনা তাহাকে তদণ্ডেই চাপিয়া ধরিল। সে আঘাত খাইয়া চলিয়া গিয়াছে, ফিরিয়া আসিয়া নির্দয় প্রতিঘাত কহিবেই। সেই নিঃসন্দেহ প্রতিশোধের কঠোরতা কল্পনা করিয়া অনঙ্গমোহন আশঙ্কায় স্তম্ভিত হইয়া রহিল । ফিরিয়া আসতে কিরণময়ীর বিলম্ব হইল না। সে নীরবে নতমুখে আঁচলে বাধা কতকগুলো অলঙ্কার ডাক্তারের পায়ের কাছে উজাড় করিয়া দিয়া আস্তে আস্তে কহিল, এই নিন আপনি। আপনার দাবী যে কত, সে হিসাব , এতদিন পরে করতে যাওয়া বৃথা । অত সময়ও আমার নেই, ধৈর্য্যও থাকবে না—যা, কিছু আমার ছিল, সমস্তই আপনাকে এনে দিয়েচি, এই নিয়ে আমাদের মুক্তি দিন,— আপনি যান । 屿犯 অনঙ্গ পাংশু-মুখে চুপ করিয়া রহিল ; কিরণ কহিল, দেরি করচেন কিসের জন্ত ? বিশ্বাস করুন, আর আমার কিছুই নেই—যা ছিল সমস্তই এনে দিয়েচি-রাত হচ্চে, আপনি বিদেয় হোন । অনঙ্গ সভয়ে বলিলেন, আমি ত তোমার গায়ের গয়না চাইনি--টাকা চেয়েছিলুম মাত্র । তাও— কিরণ অত্যন্ত অসহিষ্ণুভাবে বলিয়া উঠিল, গয়না যে টাকা, সে-কথা বোঝবার বয়স আপনার হয়েচে । অনর্থক ছুতো করে কেন মিছে দেরি করচেন। এবার অনঙ্গ সবেগে মাথা নাড়িয়া বলিয়া উঠিলেন, না, আমি কিছুতেই এ-সব নিতে পারব না । কিরণময়ী অদূরে বসিয়া পড়িয়াছিল, বিদ্যুদ্বেগে উঠিয়া দাড়াইল—কেন পারবেন না ? আপনি দয়া করচেন কাকে ? আপনাকে যা দিলুম, কোনমতেই আর তা ফিরিয়ে নিতে পারব না, এ-কথা নিশ্চয় বললুম। একমুহূৰ্ত্ত মৌন থাকিয়া কহিল, আপনি যদি নাও নেন, কাল এ-সমস্তই গরীব-দুঃখীকে বিলিয়ে দেব, কিন্তু বাড়িতে রেখে কোনমতেই আমার স্বামীর অকল্যাণ করব না,—বলিয়া পা দিয়া সেগুলো ঈষৎ ঠেলিয়া দিয়া কহিল, নিন, তুলুন ও-সব ! শেষ কথাগুলা এতই কঠিন শুনাইল যে, হতবুদ্ধি অনঙ্গমোহন হেঁট হইয়া সেগুলা কুড়াইতে লাগিল । কিরণময়ী ক্ষণকাল সেইদিকে চাহিয়া থাকিয়া উগ্রতা সংবরণ করিয়া নিরতিশয় ঘৃণাভরে কহিল, নিয়ে যান। এ-সব চিহ্ন এ-বাড়িতে থাকা পৰ্য্যন্ত আমার মুখে অন্নজল কুচবে না, চোখে ঘুম আসবে না। ডাক্তার সবগুলি কুড়াইয়া লইয়া উঠিয় দাড়াইল। কিরণময়ী অধীরভাবে কছিল, স্থাত অনেক হ’লে যে । - > R●