প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (একাদশ সম্ভার).djvu/১৪১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


झल्लिशैन জুড়ির উপর রাজরাণী-বেশে এইবার সে সাবিত্রীকে দেখিতে পাইবে । সাবিত্রীকে বেহারী সত্যই ভালবাসিত। সে কি, কিংবা কোন পথে তাহার রাণী হওয়া সম্ভব, ७-भकण अनाक्छक अंध्र डांशव्र भएन ?ाइँ श्राद्देउ न । ब्रिनिहे जादिङ्गो उशिद्ध পঞ্চম স্নেহের, পরম শ্রদ্ধার পাত্রী । সে দুঃখী, সে তাহাদের মত লোকের সঙ্গে এক আসনে দাড়াইয়া দাসীবৃত্তি করে মনে করিতেও লজ্জায় সঙ্কোচে তাহার মাথা ছেট হইয়া যাইত। তথাপি সেইদিন হইতে অস্তরে বড় দুঃখ, বড় যাতনা পাইয়াই বেহারী তাহার উপর রুষ্ট হইয়াছিল। কিন্তু আজ যেই শুনিল, সাবিত্রী তাহার মনিবের পথের কণ্টক, মুখের অন্তরায় নয়, সে সৰ্ব্বাস্তঃকরণে বারংবার আশীৰ্ব্বাদ করিতে লাগিল, সাবিত্রী স্বর্থী হোক, নিৰ্বিল্প হোক, রাজরাজেশ্বরী হোক । 變 BS হারানের জীবন-মরণের লড়াই ক্রমশ: যেন একটা করুণ তামাসার ব্যাপার হইয়া দাড়াইয়াছিল। ক্ষুধাৰ্ত্ত সাপের মত মৃত্যু তাহাকে যতই অবিচ্ছিন্ন আকর্ষণে জঠরে টানিতেছিল, ব্যাঙের মত ততই সে দুই পায়ে তাহার চোয়াল আটকাইয়া ধরিয়া কোন এক অদ্ভুত কৌশলে দিনের পর দিন মৃত্যু এড়াইয়া যাইতেছিল। বস্তুতঃ অশেষ দুঃখময় প্রাণটা তাহার যেন কোনমতেই শেষ হইবে না, এমনি মনে হইতেছিল । এই বিপদে সতীশ আসিয়াছিল সাহায্য করিতে। কিন্তু কিরণময়ীর স্বামী-সেবা দেখিয়া বিস্ময়ে হতবুদ্ধি হইয়া গেল। সে নিজেও অনেক দেখিয়াছে, স্ত্রীলোকের স্বামীর বড় কেহ নাই, তাহাও জানিত, কিন্তু যে কারণেই হোক, কোন মানুষ যে সমস্ত জানিয়া বুঝিরা এতবড় পণ্ডশ্রম এমন প্রাণ ঢালিয়া করিতে পারে, তাহা ত সে কল্পনা করিতেও পারিত না । এ কি আশ্চৰ্য্য সেবা প্রত্যহ সারারাত্রি একভাবে শব্যাপার্থে জাগিয়া বলিয়া সমস্তদিন এ কি অক্লান্ত পরিশ্রম । অথচ, মুখের উপর অবসাদ-বিষাদের দাগটুকু পৰ্যন্ত নাই। মুখ দেখিয়া বুঝিবার সাধ্য নাই কতবড় বিপদ তাহার মাথার উপর আসন্ন হইয়া রহিয়াছে । - সতীশ তাহার এই বৌঠানটিকে যথার্থ-ই জ্যেষ্ঠ ভগিনীর মত ভালবাসিন্ধাছিল। তাহার এই একান্ত উদ্বেগলেশহীন পতি-সেবা দেখিয়া তাহার অত্যন্ত ব্যথার সহিত ८कदलहे यान श्ऊहिण, ८ष कांब्ररभहे शंखेक, cशैठाप्नब जांना हरेबांटाइ चांशै। לסוג