প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (একাদশ সম্ভার).djvu/১৬২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ বেহারী খানিক পরে স্বত্ব-স্বরে কহিল, আমি গাড়ি ঠিক করে দিয়েছিলুম। চলুন, আপনার ঘরে আলো জেলে দিয়ে আসি । না থাক, আমি জেলে নিতে পারব, বলিয়া সতীশ উঠিয়া গেল । পরদিন সকালে যখন তাহার অতৃপ্ত নিদ্রা ভাঙিল, তখন বেলা হইয়াছিল। অকস্মাং প্রচণ্ড ঝটিকার মত সমস্ত ওলট-পালট করিয়া দিয়া কত কাওই না এই একটা রাত্রির মধ্যে ঘটিয়া গিয়াছে ! সেই ইতস্ততঃ বিক্ষিপ্ত বিপর্যস্ত চিহ্নগুলার মাঝখানে বহুক্ষণ পৰ্য্যস্ত তাহার মন অসাড় হুইয়া রহিল। বেহারী আসিয়া তামাক দিয়া বাহির হইয়া যাইতেছিল, সতীশ ডাকিয়া কহিল, শোনূ বেহারী, কাল কখন সে এখানে এসেছিল রে ? به . नॉदिल्ली छजिब्रां यांeङ्गां अवशि उांशांद्र नकल «धकांद्र फूडीीशं ग्रहण कद्विब्र বেহারীর ব্যথিত মনটা ভিতরে ভিতরে ভারী কাদিতেছিল। সে অবনত মুখে মৃদ্ধ-কণ্ঠে বলিল, দুপুরবেলা । কেমন করে সে এ-বাড়ির সন্ধান পেলে । সে ত জানিনে বাৰু। সতীশ তাহার মুখপানে কঠোর দৃষ্টিপাত করিয়া কহিল, ই রে বেহারী, তুই কি সত্যিই আমাকে এতবড় গরু পেয়েচি যে, এটাও বুঝতে পারিনে ? সত্যি কথা বল। বেহারী আশ্চৰ্য্য হইয়া তাহার দুই চক্ষু বিস্ফারিত করিয়া প্রভুর মুখপানে চাহিয়া ब्रश्लि । সতীশ কহিল, চেয়ে রইল যে ! তুই বিপিনের ওখানে যাস্নে ? সাবিত্রীর সঙ্গে তোর দেখাগুন কথাবাৰ্ত্ত হয় না ? না বাৰু, বলিয়া বেহারী বাহির হইবার উপক্রম করিতেই সতীশ অধিকতর ক্রুদ্ধকণ্ঠে বলিল, দাড়া, যানে। তুই যাকে এখানে আসতে শিখিয়ে দিপ্‌নি ? বেহারী নিঃশব্দে মাথা নাড়িয়া জানাইল, না। সতীশ ধমক দিয়া উঠিল-ফের না ! বেহারী অবনত-মস্তকে ছিল, চুকাইয়া মুখ তুলিয়া চাহিল। সতীশ বলিতে লাগিল, ফের না ? তবে কেমন করে সেই শয়তানটা এ বাসার সন্ধান পেলে ? যাও তুমি, তার কাছে গিয়েই থাক গে, আমার দরকার নেই। আমি ঘরের মধ্যে শক্ৰ পূবতে পারব না। আজই তুমি যাও—তোমাকে জবাব দিলুম। বেহাৰী একটা কথাও কহিল না। শুধু তাহার বিস্ময়-প্রসারিত দুই চক্ষের প্রাপ্ত বহিয়া অপ্রধারা গড়াইয়া পড়িল । 》(,