প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (একাদশ সম্ভার).djvu/৩২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


·A জাজও সাবিত্রী সমস্ত কাজকর্মে ব্যাপৃত থাকিয়া সারাদিন উৎকণ্ঠিত হইয়া রহিল। সতীশ যদি কালকের মত আজও রাগ করিত কিংবা একটা কথারও উত্তর করিত ত ভাল হইত। কিন্তু সে কিছুই করিল না। গম্ভীর বিষঃ-মুখে যথানিয়মে আহারাদি শেষ করিয়া পড়িতে চলিয়া গেল এবং ঠিক সময়ে ফিরিয়া আসিয়া নিস্তব্ধ হইয়া ঘরে বসিয়া বুহিল । আড়ালে থাকিয়া সাবিত্রী সমস্তই লক্ষ্য করিতে লাগিল ; কিন্তু কোনরকম ছুতা করিয়াও আজ তাহার ঘরে ঢুকিতে সাহস করিল না। প্রত্যহ সন্ধ্যার পূৰ্ব্বে সে নিজে গিয়া তাহার ঘর ঝাট দিয়া আসিত, আজ বেহারীকে পাঠাইয়া দিল এবং সন্ধ্যার সময় সেই গিয়া আলো জালিয়া দিয়া আসিল । রোজ এই সময়টায় রাখালবাবুর ঘরে পাশার আড্ডা বসিত, আজও বসিল এবং ঘোর কলরব থাকিয়া থাকিয়া উত্থিত হইতে লাগিল । সামনের খোলা ছাদে কেহই ছিল না। সাবিত্রী এদিকে ওদিকে চাহিয়া তাহার সমস্ত সঙ্কোচ জোর করিয়া সরাইয়া দিয়া নিঃশব্দ পদক্ষেপে সতীশের ঘরের মধ্যে আসিয়া দাড়াইল । সতীশ বিছানায় চিৎ হইয়া পড়িয়া বোধ করি কড়িকাঠ গুনিতেছিল, উঠিয়া বসিল। ক্ষণকাল নীরব থাকিয়া বলিল, আপনার আহিকের জায়গা করে দেব ? সতীশ বলিল, দাও । পুনৰ্ব্বার সাবিত্রীকে নিৰ্ব্বক্ হইতে হইল। কিন্তু কয়েক মুহূর্ত পরেই বলিয়া উঠিল, আচ্ছা, লোকে কি বলবে বলুন ত? সতীশ কোন উত্তর করিল না । সাবিত্ৰী বলিল, আপনি আমাকে থাকতে বললেন, কিন্তু নিজে কি রকম কাওটি করচেন বলুন দেখি ? সতীশ গভীরভাবে বলিল, আমি কোন কাণ্ডই করিনি, চুপ করে আছি মাত্র । - সাবিত্ৰী বলিল, এই চুপ করে থাকাটাই যে সবচেয়ে বিত্র। সবই যখন চুপ করে নেই, আপনি তখন চুপ করে থাকলেই ত কথা উঠবে—ওটা কি সাধ ? মুহূৰ্ত্তকাল স্থির থাকিয়া বলিল, ঐ যে খুঁচিয়ে ঘা করার একটা কথা আছে, আপনি ঠিক তাই করচেন। দোষ নেই, অথচ দোষী সেজে বসে আছেন । এই নিয়ে পাঁচজন কানাকানি করবে, হাসি-কৌতুক করবে, এ যদি বা আপনার বরদাস্ত হয়, আমার ত হবে না— আমাকে দেখচি তা হলে নিতান্তই যেতে হবে। সতীশ মনে মনে অস্থির হইয়া বলিল, দোষ কি কিছুই করিনি ? ३३