প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (একাদশ সম্ভার).djvu/৩৫১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


छब्रिजशैब তোমাকেই আশ্রয় করে নামতে হবে, তার কোন মানে নেই। আমার শরীর ভাল নেই, এখুনি তয়ে পড়ব—ঙ্গার তুমি অনৰ্থক দেরি করে না, যাও ! কাল সকালে তোমার জিনিস-পত্র তোমাকে পাঠিয়ে দেব। দিবাকর কহিল, এত তাড়া! আজ রাত্রের মতও আমাকে তুমি থাকতে দেবে না ? কিরণময়ী কহিল, না। দিবাকর ক্ষণকাল স্থির থাকিয়া কছিল, তা হলে আমার শুধু সৰ্ব্বনাশ করবার জন্তই এই বিপদে টেনে এনেছিলে ? কোনদিন ভালও বাসনি ? কিরণময়ী কহিল, না ; কিন্তু তোমার নয়, আর একজনের সর্বনাশ করচি ভেবেই তোমার ক্ষতি করেছি। আর আমার । যা আমার কথা । সমস্তই আগাগোড়া ভুল হয়ে গেছে । আর, এই ভুলের জন্তেই তোমার পায়ে ধরে মাপ চাচ্চি ঠাকুরপো । এই নিৰ্ব্বিকার পাষাণ-প্রতিমার মুখের প্রতি চাহিয়া দিবাকর দীর্ঘশ্বাস ফেলিয়া কহিল, জামায় সৰ্ব্বনাশের ধারণ নেই তোমার, তাই তুমি এত সহজে মাপ চাইতে পারলে। কিন্তু, এই সৰ্ব্বনাশের চেয়েও আজ আমার ভালবাসা অনেক বড়, তাই এখনো বেঁচে আছি, নইলে বুক ফেটে মরে যেভূম । কিন্তু একটা কথা আমাকে বুঝিয়ে বলে । যার কাছে তুমি যাবে, তাকেও ত ভালবাস না, হয়ত চেনোও না, তবু আমাকে ছেড়ে সেখানে যেতে চাও কেন ? আমি ত কোনদিন তোমার কোন অনিষ্ট করিনি । কিন্তু সত্যিই কি যাবে ? কিরণময়ী ঘাড় নাড়িয়া বলিল, সত্যিই যাব। তার পরে বন্ধক্ষণ পৰ্যন্ত মাটির দিকে চুপ করিয়া চাহিয়া থাকয়। মুখ তুলিয়া কহিল, না, আজ আর কিছুই গোপন করব না। আমি ভগবান মানিনে, আত্ম। মানিনে, জন্মান্তর মানিনে, স্বৰ্গ-নরক ও-সব কিছুই মানিনে —ও-সমস্তই আমার কাছে ভুয়ে, একেবারে মিথ্যে । মানি শুধু ইহকাল, আর এই দেহটাকে । জীবনে কেবল একটা লোকের কাছে একদিন হার মেনেছিলুম—লে স্বরবালা । কিন্তু সে-কথা যাক। সত্যি বলছি ঠাকুরপো, আমি মান শুধু ইহকাল, আর এই স্বন্দর দেহটাকে । কিন্তু আমার এমনি পোড়া-কপাল যে, এই দিয়ে অনঙ্গের মত পতঙ্গটাকেও একদিন মজাতে চেয়েছিলুম —বলিয়া ক্ষুদ্র একটি নিশ্বাস ফেলিয়া কিবৃণময়ী স্তন্ধ হইয়া রহিল ! মিনিট-দুই স্থির থাকিয় সে সহসা যেন জাগিয়া উঠিয়া কহিল, তার পরে একদিন —যেদিন সত্যি সত্যিই ভালবাসন্মুম ঠাকুরপো, সেদিনই টের পেলুম, কেন আমার সমস্ত দেহটা এতনি এমন করে এর জন্যে উন্মুখ হয়ে অপেক্ষা করেছিল। দিবাকর ব্যগ্র হইয়া কহিল, কাকে ভালবাসলে বৌদ্ধি ? কিরণময়ী একটু হাসিয়া, যেন নিজের মনেই বলিতে লাগিল, ভেবেছিলুম, veo S