প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (একাদশ সম্ভার).djvu/৪২১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গ্রন্থ-পত্রিচক্র ऽङ्गिब्बशेन ১৩২৩ বঙ্গাব্দের কার্তিক থেকে চৈত্র ও ১৩২১ বঙ্গাব্দে যমুনা পত্রিকায় আংশিকভাবে প্রকাশিত হয়। পরে সম্পূর্ণ গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হয় ১১ নভেম্বর ১৯১৭ (কার্তিক, ১৩২৪ বঙ্গাব্দ ) । প্রকাশ করেন রায় এম. সি. সরকার বাহাদুর অ্যাণ্ড সনস । 蠍 驗 ১৩৪৪ বঙ্গাব্দে ( ১৯৩৭ খ্ৰী: ) মুদ্রিত ৫ম সংস্করণে গ্রন্থকার এই পুস্তকের জন্য একটি ভূমিকা লিখে দেন। তা এখানে উদ্ধৃত হল : চরিত্রহীনের গোড়ীর অৰ্দ্ধেকটা লিখেছিলাম অল্প বয়সে। তারপর ওটা ছিল পড়ে। শেষ করার BBS BBB BB BS BBBBB DDBS TBBBD BBS DDBB BBB S BBB S BBB BB BBDD BBBB BBBB BBBB BBB BB BBS BBBS DD BBB S BDDB BBBB BBD DD DSe BBB B BB BBBS SS BBBB BBBBB BB BBBBB D BB BB BD DDBD BBBBDD कुट्झ हेिलांश्च । গ্রন্থকার רטורור ל চরিত্রহীনের প্রথম পাণ্ডুলিপি সবটাই আগুনে পুড়ে যায়। রেজুন থেকে ২২. ৩. ১৯১২ তারিখে শরৎচন্দ্র প্রমথনাথ ভট্টচার্যকে লেখেন “...আগুনে পুড়িয়াছে আমার সমস্তই । লাইব্রেরীর এবং চরিত্রহীন উপন্যাসের manuscript•••••• । আবার শুরু করিব। এখন উৎসাহ পাই না । ‘চরিত্রহীন" ৫ • • পাতায় প্রায় শেষ হইয়াছিল—সবই গেল।” ‘চরিত্রহীন গ্রন্থাকারে প্রকাশের পূর্বে শরৎচন্দ্র উপন্যাসটি নতুন করে লিখেছিলেন। গ্রন্থাকারে প্রকাশের সময় প্রকাশককে অস্থবিধায় পড়তে হয়। যমুনায় যখন চরিত্রহীন প্রকাশ শুরু হয় তখন শরৎচন্দ্র যমুনার সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগ করেন। ধারাবাহিকভাবে আর কোথাও প্রকাশিত হয়নি। প্রকাশক সম্পূর্ণ পাণ্ডুলিপি না পেয়ে মুদ্রণ শুরু করায় প্রকাশককে অস্ববিধায় পড়তে হয়। প্রকাশকের পক্ষ থেকে ঐন্ধীরচন্দ্র সরকার শরৎচন্দ্রকে তাহার অশ্নবিধার কথা জানালে শরৎচন্দ্র ১৯১৫ ডিসেম্বর মাসে রেজুন থেকে এক চিঠিতে তাকে জানান : “কাল রাত্রে 8X \