প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (একাদশ সম্ভার).djvu/৫৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ সাবিত্রীর কাছে প্রতিবাদ নিষ্ফল বুঝিয়া সতীশ উঠিয়া পড়িল এবং তোয়ালে কাধে ফেলিয়া স্বান করিতে নামিয়া গেল । জাহারাস্তে সতীশ আর একবার নিদ্রার আয়োজন করিতেই সাবিত্ৰী আসিয়া দ্বারের বাহিয়ে দাড়াইল । তাঁহাকে যেন দেখিতেই পায় নাই এইভাবে সতীশ দেওয়ালের দিকে মুখ ফিরাইয় গুইয়া পড়িল। - সাবিত্রী মনে মনে হাসিয়া বলিল, রাত্রের কথাগুলো বাবুর মনে আছে কি না জানতে এলুম ? সতীশ জবাব দিল না। - সাবিত্ৰী কছিল, তবে ঘুম ভাঙ্গলে দয়া করে একবার ডেকে পাঠাবেন, সেগুলো একবার মনে করে দিয়ে যাবে। বলিয়া কবাট বন্ধ করিয়া চলিয়া গেল। বিগত রান্ত্রির সমস্ত ঘটনা সতীশের মন থাকা সম্ভবও নয়, ছিলও না। বিপিনবাবুর মজলিস হইতে কখন কেমন করিয়া আসিয়াছিল, কাহার সহিত আসিয়াছিল, আসিয়া কি করিয়াছিল--এ-সমস্ত তাহার মনের মধ্যে এলোমেলো ও অস্পষ্ট হইয়াছিল। এই অস্পষ্টতাকে স্পষ্ট করিবার স্পৃহা যে তাহার একে- " বারেই ছিল না, তাহা নহে, কিন্তু একটা অনির্দেশ লজ্জার আশঙ্কা তাহাকে যেন কোনমতেই পা বাড়াইতে দিতেছিল না । তাহার সান্ধ্য কীৰ্ত্তিটাই মনে ছিল । এইটাই এতক্ষণে তাহার মেঘাচ্ছন্ন স্থতির আকাশে শুকতারার মত জলিতেছিল, কিন্তু অধিকতর জ্যোতিষ্মান দুষ্ট গ্রহও যে ওই মেঘের আড়ালেই উদ্ভত হইয়া আছে, সাবিত্রীর ইঙ্কিত সেইদিকে অজুলিসক্ষেত করিবামাত্রই তাহার চোখের ঘুম মরুভূমির বাম্পের মত উবিয়া গেল। গত সন্ধ্যায় হতবুদ্ধি হইয়া প্রদীপ নিবাইয়া ফেলার ফলট যে শেষ পৰ্য্যন্ত কিরূপ দাড়াইবে, সে-সম্বন্ধে তাহার মনে যথেষ্ট উৎকণ্ঠা ছিল ; কিন্তু তথাপি তাহার মধ্যে সত্যকার দোষ কিছুই ছিল না বলিয়া তাহাকে ঘর্তাগ্য বলিয়া সে একরকম করিয়া সাৰনা লাভ করিতেছিল এবং দোষ না করার মধ্যে যে একটা সত্যকার জোর প্রচ্ছন্ন হুইয়া থাকে সেই জোর তাহার অজ্ঞাতসারেও তাহাকে আশ্রয় দিতেছিল, কিন্তু সাবিত্রী এখন যাহা বলিয়া গেল, যে অন্ধকারের মধ্যে পথ-নির্দেশ করিয়া গেল, তাহার মধ্যে প্রবেশ করিবার সাহস তাহার কোথায় । তাহার মাতাল হইবার অভিজ্ঞতা ছিল বটে, কিন্তু অচেতন হইয়া পড়িবার অভিজ্ঞতা সে কোথায় পাইবে ? সে কেমন করিয়া আন্দাজ করিবে, সে কি করিয়াছিল, না করিয়াছিল ? কত মাতালকে কত কাণ্ড করিতে সে ত নিজের চোখেই দেখিয়াছে। এখন নিজের বেলা কোন কাজটাকে সে কি সাহলে অসম্ভব বলিয়া দূরে সরাইয়া দিৰে ? তাই এই সম্ভব-জসভবের সমস্ত তাহার মতই জটিল হইয়া উঠিতে লাগিল, ●ケ