প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (ত্রয়োদশ সম্ভার).djvu/২২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ ভারতী হাসিতে লাগিল। শশী কহিতে লাগিল, ড্রাফটুটা এলেই ব্যাঙ্কে জমা করে দেব। মাতাল, জোচ্চোর, স্পেগুপ্তি ফটু ষা মুখে এসেচে লোকে বলেচে, কিন্তু এবার দেখবো। আসলে হাত পড়বে না, কেবল মুদের টাকাতে সংসার চালিয়ে দেবো, বরঞ্চ বঁাচবে দেখবেন, পোস্ট অফিসেও একটা একাউণ্ট খুলতে হবে,—ম্বরে কিন্তু রাখা চলবে না । চাই কি বছর পাচেকের মধ্যে একটা বাড়ি কিনতেও পারবো। আর কিনতেই ত হবে,–সংসার ঘাড়ে পড়ল কিনা। সহজ নয়ত আজকালকার বাজারে । o ভারতীর মুখের দিকে চাহিয়া ডাক্তার হাঃ হাঃ করিয়া হাসিয়া উঠিলেন, কিন্তু সে মুখ গভীর করিয়া আর একদিকে চাহিয়া রহিল। শণী কহিল, মদ ছেড়ে দিয়েচি শুনেচেন বোধ হয় ? ডাক্তার কহিলেন, না । শশী কহিল, ই একেবারে । নবতারা প্রতিজ্ঞে করিয়ে নিয়েছেন । এই লইয়া উহাদের আলোচনা দীর্ঘ হইতে পারিত, কিন্তু একজনের সকৌতুক প্রশ্নমালায় ও অপরের উৎসাহদীপ্ত উত্তর দানের ঘটায় ভারতী বিপন্ন হইয়া উঠিল । সে কোনটাতেই যোগ দিতে পারিতেছে না দেখিয়া ডাক্তার অন্য প্রসঙ্গের অবতারণা করিয়া আসল কথা পাড়িলেন। কছিলেন, শশী, তুমি ত তাহলে এখান । থেকে আর শীঘ্র নড়তে পারচ না । শশী বলিল, নড়া ? অসম্ভব । ডাক্তার কছিলেন, বেশ, আমাদের তাহলে এখানে একটা স্থায়ী আজ্ঞা রইল। শশী তৎক্ষণাৎ জবাব দিল, সে কি করে হতে পারে ? আপনার সঙ্গে ত আর আমি সম্বন্ধ রাখতে পারব না। লাইফ আমার রিস্ক করা করা যায় না। ডাক্তার ভারতীকে লক্ষ্য করিয়া হাসিমুখে বলিলেন, আমাদের ওস্তাদের আর ষা দোষই থাক, চক্ষুলজ্জা আছে এ অপবাদ অতি বড় শক্রতেও দেবে না। পার যদি এই বিস্তেটা ওর কাছে শিখে নাও ভারতী । প্রত্যুত্তরে শশীর পক্ষ লইয়া ভারতী অত্যন্ত ভালমানুষের মত বলিল, কিন্তু মিথ্যে আশা দেওয়ার চাইতে স্পষ্ট বলাই ত ভাল। আমি পারিনে, কিন্তু অতুলবাবুর কাছে এ বিষ্ঠে শিখে নিতে পারলে আজ ত আমার ছুটি হয়ে যেতে দাদা। उांशांब्र कéऋब्रब्र cश्वर शिकल्ले इर्टां९ cबन ¢कयन छांब्रि श्हेबां cशल । अवौ মনোনিবেশ করিল না, করিলেও হয়ত তাৎপৰ্য্য বোধ করিত না, কিন্তু ইহার নিহিত অর্থ ধাহার বুঝিবার তাহার বিলম্ব হইল না । মিনিট-দুই সকলে মৌন হুইয়া রছিলেন। প্রথম কথা কহিলেন ডাক্তার, १**