প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (ত্রয়োদশ সম্ভার).djvu/২৫৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


श्[दृषद्म शंसैौ পরোয়ানা দিয়ে এবং সর্বশেষে হংকং বঙ্গর দক্ষিণা প্রদান করে বোলিশ সালে যজ্ঞ সমাধা হল। ঠিকই হয়েচে । এত সস্তায় আফিঙ পেয়েও ষে মূর্ধ খেতে আপত্তি করে তার এমনি প্রায়শ্চিত্ত হওয়াই উচিত। ভারতী বলিল, এ তোমার গল্প । ডাক্তার কছিলেন, তা হোক, গল্পটা শুনতে ভালো। আর এই না দেখে ফ্রান্সের ফরাসী সভ্যতা বললে, আমার ত আফিঙ নেই, কিন্তু, খাসা মানুষ-মারা কল আছে। অতএব, যুদ্ধং দেহি। হল যুদ্ধ। ফরাসী চীন সাম্রাজ্যের আনাম প্রদেশটা কেড়ে নিলে। আর যুদ্ধের খরচ, অধিকতর বাণিজ্যের স্ববিধে ট্রটপোর্ট ইত্যাদি ইত্যাদি —এসব তুচ্ছ কাহিনী থাক। ভারত কহিল, কিন্তু দাদা, তালি কি একহাতে বাজে ? চীনের জন্তায় কি কিছুই ছিল না ? ডাক্তার বলিলেন, থাকতে পারে। তবে তামাসা এই ষে, ইউরোপীয় সভ্যতার অন্যায় বোধটা অপরের ঘর চড়াও হয়েই হয়, তাদের নিজেদের দেশের মধ্যে ঘটতে দেখা যায় না। তারপরে ? বলচি । জাৰ্ম্মান সভ্যতা দেখলেন, বা রে বাঃ, এ ত ভারি মজা । আমি যে ফাকে পড়ি । তিনি এক হাজার মিশনারি এনে লেলিয়ে দিলেন । ’৯৭ সালে র্তারা যখন তোমাদের প্রভূ যীশুর মহিমা শাস্তি ও ন্যায়ধৰ্ম্ম প্রচারে ব্যাপৃত, তখন একদল চীনে ক্ষেপে উঠে পরম ধাৰ্ম্মিক জন-দুই প্রচারকের মুণ্ডু ফেললে কেটে। অন্যায়! চীনেরই অন্যায়। অতএব গেল হান্‌টও প্রদেশ জার্শ্বানির উদর বিবরে । তারপর এল বক্সার-বিদ্রোহ । ইয়োরোপের সমস্ত সভ্যতা এক হয়ে তার ৰে প্রতিশোধ নিলে, হয়ত, কোথাও তার তুলনা নেই। তার অপরিমের খেসারতের ঋণ কতকালে যে চীনের শোধ দেবে তা নীগুগৃষ্টই জানেন । ইতিমধ্যে ব্রিটিশ সিংহ, জারের ভালুক, জাপানের মুর্ঘ্যদেব—কিন্তু আর না বোন, গলা আমার শুকিয়ে আসচে। দুঃখের তুলনায় এক আমরা ছাড়া বোধ হয় এদের আর সন্ধী নেই। সম্রাট শিন্‌লুঙের নিৰ্ব্বাণ লাভ হোক, তার আশীৰ্ব্বাদের বহর আছে । ভারতী মস্ত বড় একটা দীর্ঘশ্বাস মোচন করিয়া চুপ করিয়া রহিল। ভারতী । কি দাদা ? চুপচাপ যে ? cडांभांब्र अटझब्र कथांछैfहे छांवफ़ि । षांछह शांक, ७ट्रेजरछरें कि छैौटनटशब ८ऋत्र