প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (ত্রয়োদশ সম্ভার).djvu/২৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


*ाएषब नांदौ কাগজের লণ্ঠন। ভারতী আশ্বস্ত হইয়া কহিল, ঐ যে সেই চীনে-আলো । এর মধ্যেই খরচের হুশিয়ারিটা শশি-তারার দেখবার বস্তু, এই বলিয়া সে হাসিল । দুজনে সিড়ি বাহিয়া নিঃশব্দে উপরে উঠতেই খোলা দরজার সম্মুখে প্রথমেই চোখে পড়িল—শশী মন দিয়া কি একখানা কাগজ পঞ্জিতেছে। ভারতী আনন্দ্ৰিত কলকণ্ঠে ডাকিয়া উঠিল, শশীবাবু, এই যে আমরা এসে পড়েচি,—খাবার বন্দোবস্ত করুন। নবতারা কই ? নবতারা । নবতারা ! - শশী মুখ ধুলিয়া কহিল, আমুন। নবতারা এখানে নেই। ডাক্তার স্মিতমুখে কহিলেন, গৃহিণী-শূন্য গৃহ কি রকম কবি । তাকে তাকে, আমাদের অভ্যর্থনা করে নিয়ে যাক, নইলে দাড়িয়ে থাকবো। হয়ত যাবোও না । শশী বিষন্নভাবে বলিল, নবতারা এখানে নেই ডাক্তার। তারা সৰ বেড়াতে গেছে । সহসা তাহার মুখের চেহারায় ভীত হইয়া ভারতী প্রশ্ন করিল, কোথায় বেড়াতে গেলো ? আজকের দিনে ? কি চমৎকার বিবেচনা | শশী বলিল, তারা বিয়ের পরে রেন্থনে বেড়াতে গেছে। না না, আমার সঙ্গে নয়,—সেই যে আহমেদ,—ফর্স মতন,—চমৎকার দেখতে,—কুট সাহেবের মিলের টাইম-কিপার,—দেখেচেন না ? অাজ দুপুরবেলা তারই সঙ্গে নবতারার বিয়ে হয়েচে । সমস্ত তাদের ঠিক ছিল, আমাকে বলেনি। * আগন্তুক দুজনে বিস্ময়-বিস্ফারিতচক্ষে চাহিয়া রছিলেন, বল কি শশী । শশী উঠিয়া গিয়া ঘরের একটা নিভৃত স্থান হইতে একটা স্তাকড়ার থলি জানিয়া ডাক্তারের পায়ের কাছে রাখিয়া দিয়া কহিল, টাকা পেয়েচি ডাক্তার। নবতারাকে পাচ হাজার দেব বলেছিলাম, দিয়ে দিয়েচি। বাকী আছে সাড়ে চার হাজার, পঞ্চাশ টাকা আমি নিলাম কিন্তু— ডাক্তার কহিলেন, এই টাকা কি আমাকে দিচ্চ ? শশী কহিল, ই । আর কি হবে ? আপনি নিন। কাজে লাগৰে । ভারতী জিজ্ঞাসা করিল, তাকে কবে টাকা দিলেন ? শশী কছিল, কাল টাকা পেয়েই তাকে দিয়ে এসেচি । নিলে ? শশী মাথা নাড়িয়া বলিল, ই । আহমেদ ত মোটে ত্রিশটি টাকা মাইনে পায়। তারা একটা বাড়ি কিনবে । - নিশ্চয় কিনবে। এই বলিয়া ডাক্তার সহাস্তে ফিরিয়া দেখিলেন, চোখে আঁচল দিয়া ভারতী বারান্দার একদিকে নিঃশব্দে সরিয়া যাইতেছে। ·ልፀግ