প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (ত্রয়োদশ সম্ভার).djvu/২৬২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ छांबठौ ककिउ श्हेबां कश्णि, शांक, छूषि त्रांगांरक उिद्रज्ञांब्र कब्ररण ? छांख्गंब्र घांफ़ नांष्क्लिब कहिरणन, उांहे श्रव श्ब्बउ । অভিমানে, ব্যথায়, ক্রোধে ভারতীর মুখ আরক্ত হইয়া উঠিল, বলিল, তুমি কখখনো আমায় বকতে পাবে না। ভেবেচ সবাই শশীবাবুর মত মুখ বুজে সইতে পারে ? তুমি কি জানো কি হয় মানুষের r উচ্ছ্বসিত বেদনায় কণ্ঠস্বর তাহার অবরুদ্ধ হইয়া আসিল, কছিল, তিনি ফিরে এসেচেন, এবার আমাকে তুমি কোথাও সরিয়ে নিয়ে স্বাও দাল,—আমি এ কোন দুর্ভাগ্যের পায়ে আমার সমস্ত বিসর্জন দিয়ে বসে আছি। বলিতে বলিতে মেঝের উপর মাথা রাখিয়া ভারতী ছেলেমানুষের মত কাদিয়া ফেলিল । - ডাক্তার স্থিতযুখে নীরবে আহার করিতে লাগিলেন। তার নিৰ্ব্বিকার ভাব দেখিয়া মনে হয় না যে, এই সকল প্রণয় উচ্ছ্বাস তাহাকে লেশমাত্র বিচলিত করিয়াছে। মিনিট পাঁচ-সাত পরে ভারতী উঠিয়া পাশের ঘরে গিয়া চোখ মুখ ভাল করিয়া ধুইয়া যুছিয়া যথাস্থানে ফিরিয়া আসিয়া বসিল। জিজ্ঞাসা করিল, দাদা, আর তোমাদের কিছু দেব ? ডাক্তার পকেট হইতে রুমাল বাহির করিয়া বলিলেন, বামুনের ছেলে, কিছু ছাদ বেঁধে দাও, দিন দুই যেন নিশ্চিন্তু হইতে পারি। ময়লা রুমালটা ফিরাইয়া দিয়া ভারতী খোজ করিয়া একখানা ধোয়া তোয়ালে বাহির করিল এবং রকমারি খাদ্যবস্তুর একটি পুটুলি বাধিয়া ডাক্তারের পাশে রাখিয়া দিয়া কহিল, এই ত হল বামুনের ছেলের ছাদ । আর ঐ টাকার ছোট্ট বলিটি ? ডাক্তার সহাস্তে কহিলেন, ওটি হল বামুনের ছেলের ভোজন দক্ষিণা। ভারতী বলিল, অর্থাৎ তুচ্ছ বিবাহ ব্যাপারটা ছাড়া আসল দরকারি কাজগুলো সমস্তই নিদিয়ে সমাধা হল। অকস্মাৎ হাঃ হাঃ—করিয়া আরম্ভ করিয়াই ডাক্তার সজোরে হাত দিয়া নিজের মুখ চাপিয়া ধরিয়া হাসি ধামাইলেন, গভীর হইয়া কছিলেন, কি ষে ভগবানের অভিশাপ, ভারতী, হাসতে গেলেই মুখ দিয়ে আমার অট্টহাসি ছাড়া আর কিছু বার হতেই চায় না। অষ্টকাল্প কাজবার জন্তে তোমাকে সঙ্গে না নিয়ে এলে আজ মূখ দেখানোই ভার হতো । দাদা, আবার জালাতন করচ ? : জালাতন করচি। আমি ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশের চেষ্টা করচি। कांब्रउँी ब्रांग कब्रिब थांब्र ७कश्रिक वृष क्ब्रिांदेण, जबांब श्णि बा । ፴¢ቈ