প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (ত্রয়োদশ সম্ভার).djvu/২৮১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


अtषब्र करौौ শণী গুণী না হইলেও এই ব্যবস্থায় রাজি হইল। সমস্ত জিনিসপত্র সমেত জালঠাকুরের হোটেলের মধ্যে কবিকে প্রতিষ্ঠিত করিয়া ভারতী যখন ফিরিয়া আসিল তখন রাত্রি হইয়াছে। আজ সকল দিক দিয়া তাহার প্রাত্তি ও চিত্তার আর অবধি ছিল না, পাছে শশী কিংবা আর কেহ আসিয়া তাহার নিঃসঙ্গ স্তব্ধতায় বিশ্ন ঘটায়, এই আশঙ্কায় সে নীচের ও উপরের সমস্ত দরজা-জানালা রুদ্ধ করিয়া দিয়া নিজের শোবার স্বরে প্রবেশ করিল। অভ্যাস মত পরদিন প্রত্যুষে যখন তাহার ঘুম ভাঙ্গিল তপন অনাহারের দুর্বলতায় সমস্ত শরীর এমনি অবসর যে শষ্যা ত্যাগ করিতেও ক্লেশ বোধ হইল। তৃষ্ণায় বুকের মধ্যেটা শুকাইয়া মরুভূমি হইয়া উঠিয়াছে, সুতরাং দেহধারণের এ দিকটায় অবহেলা করিলে আর চলিবে না, তাহা সে বুঝিল । খ্ৰীষ্টধৰ্ম্ম অবলম্বন করিয়াও ষে ভারতী খাওয়া-দাওয়া সম্বন্ধে সত্যই বাচ-বিচার করিয়া চলিত, এ কথা বলিলে তাহার প্রতি অবিচার করা হয়। তথাপি, মনে হয় সে সম্পূর্ণ সংস্কারযুক্ত হইতেও পারে নাই। ষে ব্যক্তিকে তাহার জননী বিবাহ করিয়াছিলেন, সে অত্যস্ত অনাচারী ছিল, তাহার সহিত একত্রে বসিয়াই ভারতীকে ভোজন করিতে হইত, তাই বলিয়া পূৰ্ব্বেকার দিনের অখাদ্য বস্তু কোনদিনও তাহার খাদ্য হইয়া ওঠে নাই। ছোওয়া-ছুইর বিড়ম্বন তাহার ছিল না, কিন্তু যেখানেসেখানে যাহার-তাহার হাতে খাইতেও তাহার অত্যন্ত ঘুণ বোধ হইত। মায়ের মৃত্যুর পর হইতে সে খরচের দোহাই দিয়া বরাবর নিজে রাধিয়াই খাইত। শুধু অমুস্থ হইয়া পড়িলে বা কাজের ভিড়ে অতিশয় ক্লাস্তি বা একান্ত সময়াভাব ঘটিলেই, কদাচিৎ কখনও ঠাকুর মহাশয়ের হোটেল হইতে সাগু, বার্লি, রুটি আনাইয়া थांशेउ । विशंना इश्र७ खेठिंबा cण शं७-बृथ श्ब्रां कांश्रज्र झांफ़िब्रा वछांछ शिटनब्र छांच्च প্রস্তুত হইল, কিন্তু রান্না করিয়া লইবার মত জোর বা প্রবৃত্তি আজ তাহার ছিল না, তাই হোটেল হইতে রুটি ও কিছু তরকারী তৈরী করিয়া দিবার জন্ত ঠাকুর মহাশয়কে খবর পাঠাইল । সোমবারে তাহাদের পাঠশালা বন্ধ থাকিত বলিয়া আজ এ দিকের পরিশ্রম তাহার ছিল না । অনেক বেলায় ঝি খাবারের থালা হাতে করিয়া আনিয়া অত্যন্ত লজ্জিত হইয়া কহিল, বডড বেলা হয়ে গেল দিদিমণি— ভারতী তাহার নিজের থালা ও বাটি আনিয়া টেবিলের উপরে রাখিল । হিন্থ হোটেলের গুচিত রক্ষা করিয়া বি দূর হইতে সেই পাত্রে রুটি ও তরকারী এবং ৰাটিতে ডাল ঢালিয়া দিতে দিতে কহিল, নাও বোসে, যা পারো দুটো মুখে দাও। ভারতী তাহার মুখের প্রতি একবার চাহিয়া দেখিল, কিছু বলিল না। ৰিয় גרא