প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (ত্রয়োদশ সম্ভার).djvu/৪৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ এ সঙ্গন্ধে কেহষ্ট কাহাকে কোন কথা কহিত না । নিরুপদ্রবেই দিন কাটিতেছিল— এষ্ট ভাল । সপ্তাহখানেক পরে একদিন অফিস হইতে ফিরিবার পরে তেওয়ারী প্রফুল্লমুখে মনের আনন্দ যথাসাধ্য সংযত করিয়া কহিল, আর শুনেচেন ছোটবাবু ? অপূৰ্ব্ব কহিল, কি ? সাহেব যে ঠ্যাঙ-ভেঙে একেবারে হাসপাতালে। বঁাচে কি না বঁাচে ! আজি ছ’দিন হ’ল—ঠিক তার পরের দিনই ! অপূৰ্ব্ব বিম্মিত হইয়া জিজ্ঞাসা করিল,- তুই কি করে জানলি ? তেওয়ারী বলিল, বাডিয়ালার সরকার আমাদের জেলার লোক কিনা, তার লঙ্গে আজ পরিচয় হ’ল । ভাড়া আদায় করতে এসেছিল । কে বা ভাড়া দেবে, —মদ খেয়ে মারামারি করে জেটি থেকে নীচে পড়ে সাহেব ত গিয়ে হাসপাতালে रुंग्र एषांग्छ्न । - তা হবে, বলিয়া অপূৰ্ব্ব কাপড় ছাড়িতে নিজের ঘরে চলিয়া গেল। কলিকাতা ত্যাগ করার পরে এই প্রথম তেওয়ারীর মন সত্যকার প্রসন্নতায় ভরিয়া উঠিয়াছে। তাহার একান্ত অভিলাষ ছিল এই লইয়া সে আজ বেশ একটুখানি আলোচনা করে, কিন্তু মনিব তাহাতে উৎসাহ দিলেন না । নাই দিন, তবুও সে বাহির হইতে নানা উপায়ে শুনাইয়া দিল যে এরূপ একদিন ধটিবেই তাহা সে জানিত । তেওয়ারী সন্ধ্যাআহ্নিক শিখিতে পারে নাই, কিন্তু গায়ত্রীটা তাহার মুখস্ত হইয়াছিল, সেই গায়ত্রী সে জরিমানার দিন হইতে সকাল-সন্ধ্য একশত আট করিয়া দুইশত ধোল বার প্রত্যহ জপ করিয়াছে। সাহেবের পা ভাঙার যথার্থ হেতু কি, ছেলেমানুষ মনিব তাহ অনুধাবন করিল কি-না সন্দেহ, কিন্তু এই মঞ্চের অসাধারণ শক্তির প্রতি তেওয়ারীর বিশ্বাস সহস্ৰগুণে বাড়িয়া গেল। স্লেচ্চ হইয়া ব্রাহ্মণের মাথার উপরে যে ঘোড়ার মত পা ঠুকিয়াছে পা তাহার ভাঙ্গিবে না ত কি ! - পরদিন সকালে তাহার অফিসের আরদালির কাছে খবর পাইয়া অপূৰ্ব্ব তেওয়ারীকে ডাকিয়া কহিল, একটা বাসার সন্ধান পাওয়া গেছে তেওয়ারী, গিয়ে দেখে অীয় দেখি পোষাবে কি না । তেওয়ারী একটু হাসিয়া কহিল, আর বোধ হয় দরকার হবে না বাবু, সে-সব আমি ঠিক করে নিয়েচি । আসচে পয়লা তারিখে যারা যাবার তারাই যাবে। বাসা বদলানো ত সোজা বাঞ্চাট নয় ছোটবাবু! বঞ্চাট যে সোজা নয় অপূৰ্ব্ব নিজেও ভাহা জানিত, সাহেবের অবর্তমানে উৎপাত বন্ধ হইয়াছে, তাহার প্রত্যাগমনের পরেও যে তাহ বজায় থাকিবে এ ভরসা তাহার ছিল না। বাসা তাহাকে বদল করিতেই হইবে, কিন্তু আফিস যাইবার ACNie