প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/২৬১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


भांभव्tद्र शङ শিবু তর্জন করিয়া প্রশ্ন করিল, র"াধিসনি এখনো ? গঙ্গামণি কহিল, না। আমার শরীর ভাল নেই, আজ আমি পারব না। নিদারুণ ক্ষুধায় শিবুর নাড়ী জলিতেছিল, সে আর সহিতে পারিল না। শাস্থিত স্ত্রীর পিঠের উপর একটা লাথি মারিয়া বলিল, আজকাল রোজ অসুখ, রোজ পারব না ! পারবিনে ত বেরে। আমার বাড়ি থেকে । গঙ্গামণি কথাও কহিল মা, উঠিয়াও বসিল না। যেমন শুইয়াছিল, তেমনি পড়িয়া রহিল । সে রাত্রে শালা-ভগিনীপতি কাহারও খাওয়া হইল না । সকালবেলা দেখা গেল গঙ্গামণি বাটতে নাই। এদিক-ওদিক কিছুক্ষণ খোজখুঞ্জির পর পাচু কহিল, দিদি নিশ্চয়ই আমাদের বাড়ি চলে গেছে। স্ত্রীর এই প্রকার আকস্মিক পরিবর্তনের হেতু শিবু মনে মনে বুঝিয়াছিল বলিয়া তাহার বিরক্তিও যেন উত্তরোত্তর বাড়িয়াছিল, নালিশ-মোকদ্দমার প্রতি ঝোকও তেমনি খাটাে হইয়া আসিতেছিল। সে শুধু বলিল, চুলোর যাক, আমার খোজবার দরকার নেই। বিকেলবেলা খবর পাওয়া গেল, গঙ্গামণি বাপের বাড়ি যায় নাই। পাচু ভরসা দিয়া কহিল, তা হলে নিশ্চয় পিসীমার বাড়ি চলে গেছে । 翰 তাহাদের এক বড়লোক পিসী ক্রোশ পাচ-ছয় দূরে একটা গ্রামে বাস করিতেন। পূজা-পৰ্ব্ব উপলক্ষে তিনি মাঝে মাঝে গঙ্গামণিকে লইয়া যাইতেন। শিবু স্ত্রীকে অত্যন্ত ভালবাসিত। সে মুখে বলিল, বটে, যেখানে খুশি যাক গে ! মরুক গে । কিন্তু ভিতরে ভিতরে অমৃতপ্ত এবং উইকষ্ঠিত হইয়া উঠিল । তবুও রাগের উপর দিন পাচ-ছয় কাটিয়া গেল। এদিকে কাজ-কৰ্ম্ম লইয়া, গরু-বাছুর লইয়া সংসার তাহার একপ্রকার অচল হইয়া উঠিল। একটাদিনও আর কাটে না এমনি হইল। সাতদিনের দিন সে আপনি গেল না বটে, কিন্তু নিজের পৌরুষ বিসর্জন দিয়া পিণীর বাড়িতে গরুর গাড়ি পাঠাইয়া দিল । পরদিন শূন্ত গাড়ি ফিরিয়া আসিয়া সংবাদ দিল সেখানে কেহ নাই। শিবু মাথায় হাত দিয়া বসিয়া পড়িল । সারাদিন স্নানাহার নাই, মড়ার মত একটা তক্তাপোষের উপর পড়িয়াছিল, পাচু অত্যন্ত উত্তেজিতভাবে ঘরে ঢুকিয়া কহিল, সামস্তমশাই, সন্ধান পাওয়া গেছে। শিবু ধড় মড় করিয়া উঠিয়া বসিয়া কহিল, কোথায় ? কে খবর দিলে । অস্থখবিমুখ কিছু হয়নি ত ? গাড়ি নিয়ে চল না এখুনি দু’জনে যাই । পাচু বলিল, দিদির কথা নয়— গয়ার সন্ধান পাওয়া গেছে। &t S