প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/৪৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষোড়শী লোকসান আপনারাই জানেন, কিন্তু আমার এমন অবস্থা যে, টাকা পেলে আমার কিছুতেই আপত্তি নেই। নতুন বন্দোবস্তে আমার কিছু পাওয়া চাই। ভালো কথা, কেউ দেখ, ত রে এককড়ি আছে না গেছে ? কিন্তু গলাটা এদিকে যে মরুভূমি হয়ে গেল । বেয়ারা । (প্রবেশ করিয়া প্রভুর ব্যগ্র-ব্যাকুল হস্তে পূর্ণ-পাত্ৰ দিয়া ) তিনি রান্না-বাড়ির ঘরগুলো দেখচেন । জীবানন্দ । এর মধ্যেই ? ডাক্‌ তাকে । (মদ্যপান ) [ ইহার পর হইতে পূজার্থীরা মন্দিরে প্রবেশ করিতে লাগিল—ও পূজা শেষ করিয়া বাহির হইয়া যাইতে লাগিল—তাদের সংখ্যা ক্রমশই বাড়িতে লাগিল। এককড়ি প্রবেশ করিল। ] জীবানন্দ । আজ যে ভৈরবীকে তলব করেছিলাম, কেউ তাকে খবর দিয়েছিল ? এককড়ি । আমি নিজে গিয়েছিলাম । জীবানন্দ। তিনি এসেছিলেন ? এককড়ি । অজ্ঞে না । 象 জীবানন্দ । না কেন ? (এককড়ি অধোমুখে নীরব ) তিনি কখন আসবেন, জানিয়েচেন ? এককড়ি । ( তেমনি অধোমুখে ) এত লোকের সামনে আমি সে-কথা হুজুরে পেশ করতে পারব না ! জীবানন্দ । এককড়ি, তোমার গোমস্তাগিরি কায়দাটা একটু ছাড় । তিনি আসবেন, না, না ? এককড়ি । না । জীবানন্দ । কেন ? এককড়ি। তিনি আসতে পারবেন না। তিনি বললেন, তোমার হুজুরকে ব’লে এককড়ি, তার বিচার করবার মত বিস্তে-বুদ্ধি থাকে ত নিজের প্রজাদের করুন গে—আমার বিচার করবার জন্যে আদালত খোলা আছে । জীবানন্দ । (অন্ধকার-মুখে ) ছ। আচ্ছা তুমি যাও। এককড়ির প্রস্থান ] প্রফুর, সেই যে চিনির কোম্পানীর সঙ্গে হাজার বিধে জমি বিক্রীর কথা হয়েছিল, তার দলিল লেখা হয়েচে ? প্রফুল্ল । আজ্ঞে হয়েচে । ۹ ها :