প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/১২৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রমণীবাবু মোটের উপর ছিলেন ভালোমানুষ লোক, থাকিতেন পরের মতে, কাহারো ভালোতেও না, মন্দতেও না । মাঝে মাঝে ভাড়া বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা ঘোষণা করা ভিন্ন অন্য অসদাচরণ করেন নাই। র্তাহার চলিয়া যাওয়াটা লাগিয়াছে অনেককেই, তবু ভাবে সেই যাওয়ার কলঙ্কিত পথে নতুন-মার সকল কালি যদি এতদিনে ধুইয়া যায় তো শোকের পরিবর্তে তাহার উল্লাস বোধই কহিবে। এ যেন তাহাদের গ্লানি ঘুচিয়া নিজেরাই নিৰ্ম্মল হইয়া বাচিল । কেবল একটা ভয় ছিল তিনি নিজে না থাকিলে তাহারাই বা দাড়াইবে কোথায় । আজ সারদা এই বিষয়েই তাহাদের নিশ্চিন্ত করিল। বলিল, পিসিম, বাড়িটার একটা ব্যবস্থা হোলো। তোমরা যেমন আছে তেমনি থাকো—তোমাদের কোথাও বাসা খুজতে হবে না, মা বলে দিলেন । তবে বুঝি মা আর কোথাও যাবেন না সারদা ? যাবেন, কিন্তু আবার ফিরে আসবেন । বাড়ি ছেড়ে বেশিদিন কোথাও থাকবেন না বললেন । আনন্দে পিসিমার চোখে জল আসিয়া পড়িল, সারদাকে আশীৰ্ব্বাদ করিয়া তিনি এই স্বসংবাদ অন্য সকলকে দিতে গেলেন। প্রতিদিন বিমলবাবু বিদায় লইবার পর সবিতা আসিয়া তাহার পূজার ঘরে প্রবেশ করেন। পূৰ্ব্বে তাহার আহিক সারিতে বেশী সময় লাগিত না, কিন্তু এখন লাগে দু-তিন ঘণ্টা । কোনদিন বা রাত্রি দশটা বাজে, কোনদিন বা এগারোটা। এই সময়টায় সারদার ছুটি, সে নীচে নামিয়া নিজের গৃহকৰ্ম্ম সারে । আজ ঘরে চুকিয়া দেখিল রাখাল বিছানায় বসিয়া প্রদীপের আলোকে তাহার খাতাখানা পড়িতেছে। জিজ্ঞাসা করিল, কখন এলেন ? তার পরে কুষ্ঠিত-স্বরে কহিল, না-জানি কত ভুল-চুকই হয়েছে! না ? রাখাল মুখ তুলিয়া বলিল, হলেও ভুল-চুক শুধরে নিতে পারবো, কিন্তু লেখাটা তো কিছুই এগোয়নি দেখচি। না। সময় পাইনি যে । পাও না কেন ? কি করে পাবো বলুন ? মায়ের সব কাজ আমাকেই করতে হয় যে। নতুন-মার দাসী-চাকরের অভাব নেই। তাকে বলো না কেন তোমারো সময়ের দরকার, তোমারো কাজ আছে! এ কিন্তু ভারি অন্যায় সারদা। রাখালের কণ্ঠস্বরে তিরস্কারের আভাস ছিল, কিন্তু সারদার মুখ দেখিয়া মনে হইল না সে কিছুমাত্র লঙ্গ পাইয়াছে। বলিল, আপনারই কি কম অন্যায় দেবতা ? ভিক্ষের দান ঢাকতে অকাজের বোঝা চাপিয়েছেন আমার ঘাড়ে। পরকে অকারণ ን››