প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/১৭৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষের পরিচয় ফুলের বাক্সেট উপহার, কিংবা মরক্কো-বাধাই মূল্যবান সংস্করণের রবীন্দ্রনাৰ অধৰ৷ শেলি ব্রাউনিঙের গ্রন্থ উপহার দেওয়ার বাধা ঘটতে পারে। বিলিতি সেলুনে আট আনার চুল ছাটার পরিবর্ভে দেশী নাপিতের কাছে আট পয়সার চুল ছাটিতে তখন হয়তো বাধ্য হইতে হয়। কিন্তু বিবাহের যোগত্যাসম্পন্ন পুরুষ যদি বিবাছোপৰোগী বয়সে কেবলমাত্র দায়িত্বভার বহনের ভয়ে অৰবা নিজের বিলাস ও অবাধ মুক্তির বাধা ঘটবার আশঙ্কায় বিবাহে পরাভূখ হয়, তবে তার চেয়ে কাপুরুষ সংসারে বিরল। হিসাব করিলে দেখা যায়, বিবাহে অনুপযুক্ত ব্যক্তি বিবাহ করিয়া যতখানি অপরাধ করে তাহাদের চেয়ে বেশী দোষী এবং অশ্রদ্ধেয়—যাহারা যোগ্যতা-সত্বেও মুক্তির ধিয় আশঙ্কায় এবং দায়িত্ব এড়াইবার জন্যই চিরকুমার থাকিতে চায়, ইত্যাদি। রাখাল নিৰ্ব্বিকার হাসিমুখে বন্ধুর যুক্তি এবং ভৎসনা নিঃশবে পরিপাক করিয়া গেল। শেষে আহারাদির পর বাসায় ফিরিবার সময় যোগেশের বারংবার পীড়াপীড়ির জবাবে বলিল, আমাকে একটু ভেবে দেখতে সময় দাও ভাই ! ধোগেশ উৎসাহিত হইয়া বলিল, বেশ বেশ, এ তো ভাল কথা । তা হলে কবে আন্দাজ তোমার উত্তর পাওয়া যাবে বলে দাও । আসছে পরপ্ত ? কেমন ? রাখাল হাসিয়া বলিল, এত বেশি সময় দিচ্ছে কেন ? বলো না, আসচে ভোরে – যোগেশ একটু লজ্জিত হইয়া বলিল, না না, তা নয়। তবে জানো কি ওদের কন্যাদায় কি-না। একটু বেশি-রকম ব্যাকুল হয়ে রয়েচে । তোমার এই ভেবে দেখা’র সময়টুকু ওদের কাছে খুনী আসামীর জজের রায়ের জন্য অপেক্ষার মতই শ্বাসরোধকর প্রতীক্ষা । তাই বলছিলাম। রাখাল বলিল, তুমি ব্যস্ত হ’য়ে না, আমি কয়েকদিনের মধ্যে তোমাকে জানিয়ে যাবো । যোগেশকে প্রসন্ন করিয়া রাখাল তাহার মেস হইতে যখন বাহির হইল তখন রাত্রি দশটা বাজিয়া গিয়াছে। বন্ধুর সনিৰ্ব্বন্ধ অনুরোধের কথাটাই ভাবিতে ভাবিতে রাস্তা চলিতেছিল। বিবাহের পাত্ৰীটি সে দিল্লীতে নিজ-চক্ষে দেখিয়া আসিয়াছে। বয়স আঠারোউনিশ হইবে। বেশ মোটাসোটা গোলগাল। রং ফর্স না হইলেও কালো বলা চলে না। চেহারার স্বাস্থ্যের লাবণ্য আছে। লেখাপড়া মোটামুটি শিখিয়াছে। স্বচীশিল্প ও রন্ধনাদি গৃহকৰ্ম্মে সুনিপুণা বলিয়া পাত্রীর পিতা উচ্ছ্বসিত সার্টিফিকেট নিজমুখেই অম্বাচিত দাখিল করিয়াছিলেন। মেয়েটি রাখাল ও যোগেশকে নমস্কার করিয়া অতিশয় গভীর-মুখে অত্যধিক অবনত শিরে আড়ষ্ট হইয়া বসিয়াছিল। সেই মেয়েটি যদিই প্রজাপতির দুৰ্বিপাকে তাহার পন্থী হইয় গৃহে আসে, কেমন মানাইবে ? মেটের সেই অতি গভীর স্বণ ও Yost