প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/২৫৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ আজ যৌবনের আস্তাচলে, দেহকামনা-বিরহিত প্রেম আপনি আসিয়া উপনীত হইয়াছে দুয়ারে। সবিতা জানে ইহার মূল্য, জানে ইহা কত দুর্লভ। ইহাকে উপযুক্ত সম্মান ও সমাদরের সহিত গ্রহণ করিবার মনোবৃত্তি বুঝি আর নাই। আজ তাহার সমস্ত হৃদয়-মন মাতৃত্বের মমতা-রসে পিক্ত হইয়া সস্তানের আনন্দ-তৃষ্ণায় তুধিত হইয়া উঠিয়াছে। কিন্তু কোথায় সে স্নেহপাত্র ? অতিরিক্ত মানসিক উদ্বেগ ও বিক্ষোভে সবিতার স্বাস্থ্যে ইদানিং ভাঙন ধরিয়াছিল। তাহার উপরে দেহের প্রতি ঔদাসীন্য ও অযত্বের অন্ত নাই । সারদা প্রায়ই অমুযোগ করিত। কিন্তু তাহার নিজের হাতে প্রতিকারের উপায় নাই। তারক কিছু বলে না। তাহার প্র্যাকটিস উত্তরোত্তর জমিয়া উঠিতেছে, আপনার উন্নতির একান্ত চেষ্টা লইয়াই সে অহোরাত্র নিমগ্ন । সেদিন বিকেলবেলায় সবিতা ভাড়ার-ঘরে কুটুনা কুটিতে বসিয়া একখানি ডাকের চিঠি খুলিয়া নীরবে পাঠ করিতেছিলেন। র্তাহার মুখে বিস্ময় ও বেদনাবিমিশ্র সকরুণ হাসির রেখা। বিমলবাবু সিঙ্গাপুর হইতে লিখিয়াছেন— "সবিতা, সারদা-মায়ের সংক্ষিপ্ত পত্রে জানিলাম তোমার স্বাস্থ্য খুবই খারাপ হইয়াছে। অথচ এ-সম্বন্ধে তুমি নাকি সম্পূর্ণ উদাসীন। সারদা-মা জানাইয়াছেন সময় থাকিতে সাবধান না হইলে সত্ত্বর কঠিন ব্যাধিতে তোমার শয্যাশায়িনী হওয়ার সম্ভাবনা | - তুমি তো জানো, ভগ্নস্বাস্থ্য লইয়া অকৰ্ম্মণ্য জীবন বহন করার দুঃখ মৃত্যুর অধিক। আমার আশঙ্কা হইতেছে, এভাবে চলিলে তুমি হয় তো সেই অতি দুঃখময় জীবন বহন করিতে বাধ্য হইবে । কাহারও ইচ্ছার উপরে হস্তক্ষেপ করা আমার প্রকৃতি নয় । তোমার ইচ্ছার উপর তাই আমি নিজের ইচ্ছা প্রকাশ করিতে কুষ্ঠিত হই। হিতাৰ্থ বন্ধু হিসাবে তোমাকে স্মরণ করাইয়া দিতেছি—অতিরিক্ত মানসিক সংঘাতে তুমি এতদূর বিচলিত হইয়াছ যে, জীবিত মমুষ্যের পক্ষে স্বাস্থ্য যে কত বেশি প্রয়োজনীয়, তাহাও বিস্তুত হইয়াছ। অন্তগূঢ় মর্থবেদনায় আত্মসংবিং হারাইয়া দেহের উপর অবজ্ঞা করা ঠিক নয়। এ ভূলও ভবিষ্যতে একদিন মানুষ আপনি বুঝিতে পারে ; কিন্তু তখন হয়তো এত বিলম্ব হইয়া যায় যে, প্রতিকারের উপায় থাকে না। তাই আমার অনুরোধ, শরীরের অযত্ন করিও না।” সৰ্ব্বশেষে লিখিয়াছেন—“৩ারকের বিবাহের কথা সম্ভবতঃ সে তোমাকে জানাইয়া থাকিবে । এ বিবাহে তোমার মতামত কি জানিতে ইচ্ছা করি । আমার সম্মতি এবং আশীৰ্ব্বাদ প্রার্থনা করিয়া সে পত্র লিথিয়াছে। পাত্ৰীটি তারকের সিনিয়র উকিল १8**