প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/২৬১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষের পরিচয় সবি তা বলিলেন, কেন ? দেশ-দেশান্তরে ঘুরে এলে অনেক-কিছুই জানতে পারবে, শিখতে পারবে । সারদা মাথা নাড়িয়া বলিল, না মা, যাবে না। তারা যদি আমায় দেখে ফেলে ? সবিতা বিস্মিত হইয়া জিজ্ঞাসা করিলেন, সে কি ! সে আবার কারা ? সারদা অত্যন্ত কুষ্ঠিত হইয়া বলিল, আমার বাপের বাড়ির লোকেরা। সবিতা বুঝিলেন সমস্তই। প্রশ্ন করিলেন না কিছু। দীর্ঘশ্বাস ফেলিয়া বলিলেন, তা নাই গেলে তীর্থে। এখানে থেকেই পড়াশুনা ক’রে । কপট ব্যাকুলতায় সারদা বলিয়া উঠিল, আপনার কাছ ছাড়া হতে আমার একটুও ভরসা হয় না মা । বোর্ডিং-এ একলা থাকতে ভয় করবে না তো ? ভয় কিসের ? সেখানে তোমার মতো ক—ত মেয়ে রয়েচে—আমার রাজু কলকাতায় রইলো, তারকও থাকলো, ওদের বলে যাবে তোমার খোজ-খবর নেবে। যখন যা দরকার হবে ওদের জানাতে পারবে । প্রায়ান্ধকার গৃহে সবিতার শয্যাপার্শ্বে চুপ করিয়া দাড়াইয়া সারদা নিঃশবে চিন্তা করিতে লাগিল। অনেকক্ষণ পরে অস্ফুট-স্বরে ডাকিল, মা— বলো সারদা, আমি জেগেই আছি, বিছানার ভিতর হইতে সবিতা জবাব দিলেন। আমার নিজের কথা সমস্ত আজ বলতে ইচ্ছে আপনার কাছে। আজ অনেক রাত হয়ে গেছে মা। তুমি শুয়ে পড়ে গিয়ে। যাই—আমি বিধবা হয়েছিলাম মা এগারো বৎসর বয়সে। শ্বশুরবাড়ি আর যাই নি। ছোটবেলাতেই মা মারা গিয়েছিলেন । বাপ আবার বিয়ে করে – সবিতা বাধা দিয়া বলিলেন, তোমাকে কিছুই বলতে হবে না সারদা, আমি সমস্তই শুনেচি । পরদিন সবিতা বিমলবাবুকে পত্র লিখিতেছিলেন -“বহুদূরে কোথাও চলিয়া যাইবার জন্য আমার মন নিরতিশয় ব্যাকুল হইয়াছে। অনেক চিন্তা করিয়া শেষ পৰ্য্যন্ত তীর্থভ্রমণে বাহির হইব স্থির করিয়াছি। এখানে ফিরিবার আর রুচি নাই । অনির্দিষ্ট ঘুরিতে ঘুরিতে যে দেশ ভালো লাগিবে, সেইখানেই বাস করিব মনে করিতেছি। কলকাতার বাসা আর রাখিবার প্রয়োজন নাই। তারকের ভাবী খণ্ডর তারককে নিজের বাটীতে রাখিতে চাহেন। তাহার আইন ব্যবসায়ের সকলরকম সাহায্য এবং ভবিষ্যতে সংসার পাতিয়া দিবার দায়িত্ব লইতে তিনি প্রস্তুত। আমি তারককে এ ব্যবস্থায় সম্মত হইতে পরামর্শ দিতেছি। * সারদার শিক্ষা যতদিন না সমাপ্ত হয়, সে উহাদের শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের বোর্ডিং

  • む)