প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/২৭৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেবের পরিচয় চা চালিতে চালিতে সবিতা অত্যন্ত সহজভাবে বলিলেন, কাল বেশ ভালো করে ভেবে-চিন্তে কর্তব্য স্থির করে ফেলেচি। বুঝেচে ? বিমলবাবু বলিলেন, কিসের ? ওই ওদের সম্বন্ধে। এই অনির্দিষ্ট সৰ্ব্বনাম যে কাহার উদ্বেপ্তে উচ্চারিত হইল বিমলবাবু বুঝিতে পারিলেন। কতখানি গভীর বেদনার ফলেই অতি প্রিয় নাম আজ সৰ্ব্বনামে রূপান্তরিত হইয়াছে, তাহাও তাহার অজ্ঞাত রহিল না। বলিলেন, কি স্থির করলে সবিতা ? সিঙ্গাপুরে যাওয়াই স্থির করলাম। আরও দিনকতক তীর্থভ্রমণে বেড়ানো যাক-তারপরেও যদি ইচ্ছে করে, যাবে । কেমন ? না, আর তীর্থে নয়। মানুষের হাতে গড়া এই পুতুল খেলার তীর্থে ঘুরে ঘুরে শুধু ঘোরার নেশায় খানিক সময় কাটে মাত্র, অন্তরের প্রকাও জিজ্ঞাসার উত্তর মেলে না। এ খেলায় আর যারই মন ভুলুক, যে সত্য চায়, তার মন ভোলে না। এবারে तिर्थांश फ़ाई । বিমলবাবু একটু ইতস্ততঃ করিয়া বলিলেন, কিন্তু যেখানে বিশ্রামের আশায় যেতে চাইচে, সেখানে গিয়ে যদি তা না পাও? সে ভয় করে না। এবার আর আমার ভূল হবে না। তোমার হাত দিয়ে ভগবান আমার জীবনের দিনান্তে যে সামগ্ৰী আমাকে পাঠিয়েচেন, তা সামান্ত নয়। বোট থেকে যে ফুল ছিড়ে পড়ে গেছে মাটিতে, সে ফুল আর কখনো শাখার বাধনে ফিরে আসে না। আলেয়ার পিছনে ছুটে বেড়ানো যে শুধু দুঃখই বাড়ানে-এবার তা আমি বুঝতে পেরেচি। অনেকক্ষণ নিবন্ধে কাটিয়া গেল। বিমলবাবু দ্বিজ্ঞাসা করিলেন, তা হলে টেলিগ্রাম করে দিই, সিঙ্গাপুরের জাহাজে দুটো কেবিন রিজার্তের জন্ত ? সবিতা মাথা হেলাইয়া সম্মতি জানাইলেন। পরদিন সকালে বিমলবাবু মধু হইতে মোটরযোগে যখন বৃন্দাবনে রওনা হইলেন, সবিস্তাকে বলিলেন, ব্ৰজবাৰু তোমাকে তার বাসার নিমন্ত্ৰণ করেছিলেন। একবার ঘুরে আসবে নাকি ? সবিতা অসন্মত হইলেন। বিমলবাবু একাই বাহির হইরা গেলেন। বৃন্দাবনে ব্ৰজবাৰু ঠিকানা খুজিয়া বাসার পৌঁছিয়া দেখিলেন, বেণু পূৰ্ব্বনি রাজি হইতে কলেরায় আক্রান্ত হইয়াছে। চিকিৎসা ও শুশ্রষার উপযুক্ত বন্দোবস্ত কিছুই হয় নাই। BBB DBBBBBBBB BBD DDBDS DDDD DDDBB DD DD શબ્દ

  • 鱼誉