প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বাদশ সম্ভার).djvu/৩৫৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পত্র-সঙ্কলন ব্যাপারটি সম্পন্ন হ’ল, এ অনুষ্ঠানটিকে যে নিষ্ঠায়, শ্রমে ও শ্রদ্ধার সার্থক ক’রে তুললে,—তাতেই আমার আনন্দ, অকপট আনন্দ। কবির সম্বন্ধে জামি এখানে ওখানে কখনো কখনো মন্দ কথা বলেছি, রাগের মাথায়—এ যেমন সত্যি- এs তেমনি সত্যি যে, আমার চাইতে র্তার বড় ভক্ত আর কেউ নেই,—আমার চাইতে তাকে কেউ বেশী মানেনি গুরু বলে, - আমার চাইতে কউ বেশী মকৃসো করেনি তার লেখা । তার কবিতার কথা বলতে পারবে না, কিন্তু আমার চাইতে বেণীবার কেউ পড়েনি তার উপন্যাস,—তার চোখের বালি, র্তার গোরা, তার গল্পগুচ্ছ। আজকের দিনে যে এত লোকে আমার লেখা প’ড়ে ভাল বলে, সে তারি জন্ত । এ সত্য, পরম সত্য আমি জানি। আর কেউ বললে কি না-বললে, মানলে, কি না-মানলে, তাতে কিছু এসে যায় না। তাই আমি আমার সমস্ত অন্তর দিয়ে যোগ দিয়েছি এই জয়ন্তীতে, না দিয়ে পারিনি। মন্ত বড় কাজ করেছ তুমি। প্রাণ ভরে তোমাকে আশীৰ্ব্বাদ করি । শুনেছি তুমি এই জয়ন্তী ক'রে কলকাতার বাড়ি তুলছ, গাড়ি হাকাচ্ছ ! তোমার আমার বন্ধুরাই এ কথা পরম উৎসাহে প্রচার করেছেন। জয়ন্তীর গোড়ায় এসে গুনেছি, স্বয়ং কবি তোমাকে খাড়া করেছেন, তার শিখণ্ডী মাত্ৰ তুমি—পেছনে থেকে তিনিই তোমাকে সব করাচ্ছেন। এ যে বাংলাদেশ অমল। 'সোনার বাংলা !’ তৰু বলতে হবে—“আমি তোমায় ভালবাসি ! মনে কোন ক্ষোভ রেখো না-ষে যা বলে বলুক। আমি জানি তোমার বাড়ি হয়নি, গাড়িও হয়নি—যে গাড়ি চড়ে বেড়াও সেবুঝি কর্পোরেশনের। বাস, ঐ পৰ্য্যস্ত। তা না হোক—তোমার ভাল হবে। দেশের মুখ রেখেছ তুমি । তোমাকে সমস্ত অন্তর থেকে আবার আশীৰ্ব্বাদ জানাই ! তোমার—শরৎদ{ अभल cशांवक निषेिठ ! ' ©ፀጫ