প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/১৭৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ই রে যতীন, খেলা করছিস, ইস্কুলে যাবিনে ? আমাদের যে আজ-কাল দু’দিন ছুটি দিদি । মালী শুনিতে পাঠ্য। কুৎসিত মুখ আবণ্ড বিশ্ৰী কবিয বলিলেন, মুখপোডা ইস্কুলের মাসের মধ্যে পনর দিন ছুটি । তুষ্ট তাত ওর পিছনে ঢাকা খরচ কবিস, আমি হ’লে আগুন ধরিয়ে দিতুম । বলিখা নিজের কাজে চলিযা গেলেন ধোল আনা মিথ্যাবাদিনী বলিযা যাহারা মাসীর অখ্যাতি প্রচাব কবিত তাহব। ভুল কবিত। এমন একআধটা সত্য কথা বলিতেও তিনি পারিতেন এব” অবশ্যক হতলে করিতেও পশ্চাৎপদ হইতেন না । রম ছোট ভাইটিকে কাছে টানিয়া লষ্টয আস্তে আস্তে জিজ্ঞাসা করিল, ছুটি কেন রে যতীন ? যতীন দিদির কোল ঘেষিয়া দাডাইয কহিল, আমাদের ইস্কুলের চাল ছাওয হচ্চে যে । তারপব চুনকাম হবে -কত বই এসেচে, চার-পাঁচটা চেষার টেবিল, একটা আলমারি, একটা খুব বড় ঘড়ি একদিন তুমি গিয়ে দেখে এসো ন দিদি ? রম অত্যন্ত আশ্চৰ্য্য হইয়া কহিল, বলিস্ কি রে । ই। দিদি, সত্যি। বমেশবাবু এলেচেন না—তিনি সব ক’বে দিচ্ছেন। বলিয়। বালক আরও কি কি বলিতে যাইতেছিল, কিন্তু মুখে মাসীকে আসিতে দেখিয। বৃম। তাড়াতাডি তাহাকে লইযা নিজের ঘবে চলিয়া গেল । আদব করিয়া কাছে বসাইয়া প্রশ্ন করিয়া এষ্ট ছোট-ভাইটি মুখ হই। ত বমেন্বে ইস্কুল সম্বন্ধে অনেক তথ্য সংগ্রহ করিল। প্রত্যহ দুই-এক ঘণ্টা করিয। তিনি নিজে পডাইয়া যান, তাহাও শুনিল । হঠাৎ জিজ্ঞাসা কবিল, ই বে যতীন, তোকে তিনি চিনতে পারেন ? বালক সগৰ্ব্বে মাথা নাড়িয়া বলিল, হা— কি বলে তুই তাকে ডাকিম ? এইবার যতীন একটু মুস্কিলে পণ্ডিল। কারণ, এতটা ধনিষ্ঠতার সৌভাগ্য এবং সাহস আজও তাহার হয নাই । তিনি উপস্থিত হইবামাত্র দোদণ্ড-প্রতাপ হেডমাস্টার পর্যান্ত যেরূপ তটস্থ হইযা পডেন, তাহাতে ছাত্রমহলে ভয় এবং বিস্ময়ের পরিসীম। থাকে না। ডাকা ত দূরেব কথা-ভরসা কবিয়া ইহারা কেই তাহার মুখের দিকে চাহিতেই পারে না। কিন্তু দিদির কাছে স্বীকার কৰা ত সহজ নহে। ছেলেরা মাস্টারদিগকে ছোটবাবু বলিয়া ডাকিতে শুনিধাছিল। তাই সে বুদ্ধি খরচ করিয়া কহিল, আমরা ছোটবাবু বলি। কিন্তু তাহার মুখের ভাব দেখিযা রমার বুঝিতে ჯაყ%